চলতড়িৎ (ষষ্ঠ অধ্যায়)

চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) MCQ, সংক্ষিপ্ত, অতি সংক্ষিপ্ত এবং রচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর | Madhyamik Physical Science Suggestion – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন 

বহুবিকল্পভিত্তিক প্রশ্নোত্তর : (মান – 1) Madhyamik Physical Science Suggestion – চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) প্রশ্নউত্তর – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন

  1. ফ্লেমিং-এর বামহস্ত নিয়মে তৰ্জনী – a. তড়িৎপ্রবাহের দিক নির্দেশ করে b. চৌম্বকক্ষেত্রের দিক নির্দেশ করে c. পরিবাহীর গতির অভিমুখ নির্দেশ করে d. এদের সবগুলিই

উত্তরঃ[b] চৌম্বকক্ষেত্রের দিক নির্দেশ করে

  1. পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ পরিবহণে অংশগ্রহণ করে – a. নিউট্রন b. প্রোটন c. ইলেকট্রন d. কোনোটিই নয়

উত্তরঃ[c] ইলেকট্রন

  1. তড়িৎ কোশের বিভবপার্থক্যের EMFএর মানের চেয়ে – a. বেশি  b. কম c. সমান d. কোনোটিই নয়

উত্তরঃ[b] কম

  1. ওহমের সূত্র মেনে চলে – a. অর্ধপরিবাহী b. ডায়োড  c. ট্রায়োডd. ধাতব পরিবাহী

উত্তরঃ[d] ধাতব পরিবাহী

  1. রোধের মাত্রা হল – a. [ML2T-3A-2] b. [ML2T-2A-3] c. [ML2T-3A-2]  d. [ ML2T-3A-3]

উত্তরঃ a. [ML2T-3A-2]

  1. পরিবাহীর রোধ উষ্ণতার – a. সমানুপাতিক b.  ব্যস্তানুপাতিক c. বর্গের ব্যস্তানুপাতিক d. বর্গের সমানুপাতিক

উত্তরঃ[a] সমানুপাতিক

  1. একটি নির্দিষ্ট পরিবাহীতে প্রবাহমাত্রা পূর্বের দ্বিগুণ সময় ধরে পাঠালে পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ হবে – a. চারগুণ b.  দ্বিগুণ c. তিনগুণ  d. একই

উত্তরঃ[b] দ্বিগুণ

  1. সমান দৈর্ঘ্যের একটি মোটা ও একটি সরু তামার তারের মধ্য দিয়ে একই প্রবাহমাত্রা একই সময় ধরে পাঠালে বেশি গরম হবে – a. সরু তারটি b. মোটা তারটি c. সমানভাবে সরু ও মোটা তার d. কখনওসরুতারটিকখনও মোটাতারটি

উত্তরঃ[a] সরু তারটি

শূন্যস্থান পূরণ করো: (মান – 1) Madhyamik Physical Science Suggestion – চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) প্রশ্নউত্তর – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন

  1. কুলম্ব =________  সেকেন্ড।

উত্তরঃ[অ্যাম্পিয়ার]

  1. 1 ওয়াট-ঘণ্টা =________ জুল।

উত্তরঃ[3600]

  1. 1 emu________ A ।

উত্তরঃ[10]

  1. তড়িৎ চালক বল হল________  কারণ।

উত্তরঃ[বিভব প্রভেদের]

  1. ফিউজ তার________ রোদ, এবং ________  গলনাঙ্ক বিশিষ্ট হয়।

উত্তরঃ[ক্রোমিয়াম]

  1. ক্ষেত্রফল বৃদ্ধি পেলে পরিবাহীর রোধ________  পায়।

উত্তরঃ[হ্রাস]

সত্য বা মিথ্যা নির্বাচন করো: (মান – 1) Madhyamik Physical Science Suggestion – চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) প্রশ্নউত্তর – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন

  1. অপরিবাহীকে ওহমীয় পরিবাহীও বলা হয়।          [F]
  2. সিলিকনের রোধাঙ্ক তাপমাত্রা বৃদ্ধির সঙ্গে হ্রাস পায়।         [T]
  3. পরিবাহিতাঙ্ককে   দ্বারা প্রকাশ করা হয়।   [T]
  4. LED -র থেকে CFL -এ শক্তির অপচয় কম হয়।        [F]
  5. 1C = 3 x 10 esu । [T]

অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর: (মান – 1) Madhyamik Physical Science Suggestion – চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) প্রশ্নউত্তর – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন

  1. তড়িৎ কয় রকমের ও কী কী ?

উত্তরঃ তড়িৎ দুই ধরনের, যথা – (i) থিরতড়িৎ ও (ii) চলতড়িৎ

  1. সিজিএস পদ্ধতিতে আধানের একক কী ?

উত্তরঃ সিজিএস পদ্ধতিতে আধানের একক esu বা স্ট্যাটকুলম।

  1. কলম্ব ও esu এর মধ্যে সম্পর্ক কী ?

উত্তরঃ 1 কুলম্ব = 3  109 esu

  1. আধানের ব্যবহারিক একক লেখো ।

উত্তরঃ আধানের ব্যবহারিক একক কুলম্ব।

  1. তড়িৎবিভব স্কেলার রাশি না ভেক্টর রাশি?

উত্তরঃ তড়িংবিভব স্কেলার রাশি।

  1. সিজিএস পদ্ধতিতে তড়িৎবিভবের একক কী ?

উত্তরঃ সিজিএস পদ্ধতিতে তড়িৎবিভবের একক esu বা স্ট্যাটভোল্ট।

  1. তড়িচালক বলের ব্যবহারিক একক কী ?

উত্তরঃ তড়িচালক বলের ব্যবহারিক একক ভোল্ট।

  1. পৃথিবীর বিভব কত ?

উত্তরঃ পৃথিবীর বিভব শূন্য।

  1. তড়িৎ কোশে কোন শক্তি কোন শক্তিতে রূপান্তরিত হয় ?

উত্তরঃ তড়িৎ কোশে রাসায়নিক শক্তি তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

  1. তড়িৎ প্রবাহমাত্রার ব্যবহারিক একক কী?

উত্তরঃ তড়িৎ প্রবাহমাত্রার ব্যবহারিক একক অ্যাম্পিয়ার।

  1. 1 emu = কত আাম্পিয়ার ?

উত্তরঃ 1 emu = 10 অ্যাম্পিয়ার

  1. রোধের ব্যবহারিক একক কী ?

উত্তরঃ রোধের ব্যবহারিক একক ওহম।

  1. পরিবাহিতা কী ?

উত্তরঃ রোধের অন্যোন্যক রাশি হল পরিবাহিতা।

  1. রোধের মাত্রা কী ?

উত্তরঃ রোধের মাত্রা =  [ML2T-3A-1]

  1. সিজিএস পদ্ধতিতে রোধাঙ্কের একক কী ?

উত্তরঃ  সিজিএস পদ্ধতিতে রোধাঙ্কের একক ওহম-সেমি।

  1. এমন একটি ধাতুর নাম করো যার উপর আলো পড়লে রোধ কমেযায়।

উত্তরঃ সেলেনিয়াম ধাতুর উপর আলো পড়লে রোধ কমে যায়।

  1. r1 ও r2 রোধকে সমান্তরাল সমবায়ে যুক্ত করলে তুল্য রোধ কত হবে ?

উত্তরঃ r1 ও r2 রোধকে সমান্তরাল সমবায়ে যুক্ত করলে তুল্য রোধ R হবে,  বা, R  ।

  1. নাইক্রোম কী ?

উত্তরঃ নাইক্রোম হল আয়রন, ক্রোমিয়াম ও নিকেলের সংকর ধাতু।

  1. ফিউজ তারের বৈশিষ্ট্য কী ?

উত্তরঃ  ফিউজ তারের বৈশিষ্ট্য হবে গলনাঙ্ক কম ও রোধাঙ্ক বেশি। 

  1. ওয়াট- ঘণ্টা কোন ভৌত রাশির একক ?

উত্তরঃ ওয়াট-ঘণ্টা তড়িৎ শক্তির একক।

21  কিলোওয়াট-ঘন্টা বা BOT দ্বারা কী পরিমাপ করা যায় ?

উত্তরঃ কিলোওয়াট-বা BOT দ্বারা তড়িৎশক্তি পরিমাপ করা যায়।

  1. নিউট্রাল তারের বর্ণ কী হয় ?

উত্তরঃ নিউট্রাল তারের বর্ণ হালকা নীল বর্ণ  হয়।

  1. লাইভ তার কী রঙের হয়?

উত্তরঃ লাইভ তার লাল বা বাদামী বর্ণের হয়।

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর: (মান – 2) Madhyamik Physical Science Suggestion – চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) প্রশ্নউত্তর – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন

  1. পজিটিভ এবং নেগেটিভ তড়িৎ কীভাবে উৎপন্ন হয় ?

উত্তরঃ কোনো মৌলিক পদার্থের সুস্থির পরমাণুর মধ্যে ইলেকট্রন ও প্রোটনের সংখ্যা সমান। ইলেকট্রনগুলি নেগেটিভ বা ঋণাত্মক তড়িৎগ্রস্ত ও প্রোটনগুলি পজিটিভ বা ধনাত্মক তড়িৎগ্রস্ত কণা। ইলেকট্রনের হ্রাস-বৃদ্ধির দ্বারা কোনো পদার্থে তড়িৎ এর  প্রকৃতি নির্ধারিত হয়। যে পদার্থ থেকে ইলেকট্রন অপসারিত হবে সেটি ধনাত্মক বা  পজিটিভ তড়িৎগ্রস্ত এবং যে পদার্থটি ইলেকট্রনের আধিক্য ঘটবে সেটি ঋণাত্মক  বা নেগেটিভ তড়িৎগ্রস্ত হবে।

  1. উচ্চবিভব বলতে কী বোঝো ?

উত্তরঃ উচ্চবিভব: কোনো একটি নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে প্রচুর পরিমাণ ধনাত্মক আধান উপস্থিত  থাকলে সেই ক্ষেত্রটি উচ্চবিভবে আছে বলা হয়।

  1. সিজিএস ও এসআই পদ্ধতিতে তড়িৎবিভবের একক কী

উত্তরঃ সিজিএস পদ্ধতিতে তড়িৎবিভবের একক esu বা স্যাটভোল্ট। এস আই পদ্ধতিতে তড়িৎ বিভবের একক ভোল্ট।

  1. দুটি বিন্দুর বিভবপার্থক্য 100 ভোল্ট বলতে কী বোঝো ?

উত্তরঃ দুটি বিন্দুর বিভবপার্থক্য 100 ভোস্ট বলতে বোঝায় এই যে, এক বিন্দু থেকে অপর

বিন্দুতে এক কুলম্ব ধনাত্মক তড়িদাধানকে নিয়ে যেতে 100 জুল কার্য করতে হয়।

  1. কোনো কোশের তড়িচালক বল বলতে কী বোঝো ?

উত্তরঃ তড়িৎচালক বল (EMF): যার প্রভাবে বা যে কারণে তড়িৎ বর্তনীর কোনো অংশে রাসায়নিক শক্তি বা অন্য কোনো শক্তি তড়িৎশক্তিতে রূপান্তরিত হয়ে বিভব পার্থক্যের সৃষ্টি করে, তাকে তড়িচালক বল ।

  1. ‘একটি কোশের তড়িচালক বল 1.5 ভোল্ট-এর অর্থ কী ?

উত্তরঃ কোনো কোশের তড়িচালক বল 1.5 ভোল্ট বলতে বোঝায় যে, কোশটির ধনাত্মক মেরু থেকে ঋণাত্মক মেরুতে 1 কুলম্ব তড়িদাধান নিয়ে যেতে 1.5 জুল কার্য করতে হয়।

  1. ‘তড়িৎ প্রবাহমাত্রা’ কাকে বলে ?

উত্তরঃ পরিবাহীর যে-কোনো  প্রথচ্ছেদের মধ্য দিয়ে প্রতি সেকেন্ড যে পরিমাণ ধনাত্মক আধান প্রবাহিত হয় তাকে ওই পরিবাহীর তড়িৎ প্রবাহমাত্রা বলে।

  1. তড়িৎ প্রবাহমাত্রার ব্যবহারিক এককের সংজ্ঞা দাও ।

উত্তরঃ তড়িৎ প্রবাহমাত্রার ব্যবহারিক একক অ্যাম্পিয়ার।

আাম্পিয়ার: কোনো পরিবাহীর যে-কোনো প্রস্থচ্ছেদের মধ্য দিয়ে প্রতি সেকেণ্ডে এক কুলম্ব তড়িৎ প্রবাহিত হলে ওই তড়িৎ প্রবাহমাত্রাকে এক অ্যাম্পিয়ার বলে।

  1. সমপ্রবাহের সংজ্ঞা দাও এর উৎস কী ?

উত্তরঃ সমগ্রবাহু : তড়িৎপ্রবাহ যদি সব সময় একই দিকে হয়, তবে সেই তড়িৎপ্রবাহকে সমপ্রবাহ বলে। এর উৎস তড়িৎ কোশ।

  1. ওহমের সূত্রটিকে লেখচিত্রের সাহায্যে প্রমাণ করো

উত্তরঃ ওহমের সূত্রটিকে লেখচিত্রে প্রকাশ করলে এটি একটি মূলবিন্দুগামী সরলরেখা হয়। অনুভূমিক অক্ষ বরাবর বিভব (V) ও উল্লম্ব অক্ষ বরাবর প্রবাহমাত্রা (I) নির্দেশ করে অঙ্কিত সরলরেখার নীতির অন্যোন্যক পরিবাহীটির রোধের মান নির্দেশ করে।

  1. পরিবাহীর রোধ পরিবাহীর উপাদান ও উষ্ণতা উপর কীভাবে নির্ভর করে ?

উত্তরঃ পরিবাহীর উপাদান ; পরিবাহীর উষ্ণতা দৈর্ঘ্য, প্রস্থচ্ছেদ অপরিবর্তিত রেখে যদি উপাদান পরিবর্তন করা হয় রোধও পরিবর্তিত হয়। যেমন— সমউষ্ণতা সমদৈর্ঘ্য ও সমপ্রস্থচ্ছেদের রুপার তারের রোধ তামার তারের রোধের চেয়ে কম।

  1. তামার রোধাক 1.78  106 ওহম-সেমি বলতে কী বোঝো ?

উত্তরঃ ‘তামার রোধাঙ্ক 1.78 x 10-6 ওহম-সেমি’ বলতে বোঝায় যে, নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় এক সেন্টিমিটার বহুবিশিষ্ট একটি তামার ঘনকের দুটি বিপরীত তলের মাঝের রোধ 1.78 x 10-6 ওহম।

  1. দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত কয়েকটি পরিবাহী ও অন্তরকের উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত পরিবাহীগুলি হল— লোহা লোহার সংকর ধাতু, তামা সোনা ইত্যাদি। অন্তরকগুলি হল- কাচ, রবার, কাগজ, পিভিসি ইত্যাদি।

  1. উষ্ণতার সঙ্গেগ অতিপরিবাহীর রোধাকের পরিবর্তনের লেখচিত্র কীরূপ হবে ?

উত্তরঃ উষ্ণতা সঙ্গে অতিপরিবাহীর রোধাঙ্কের পরিবর্তনের লেখচিত্র দেখানো হল।

  1. একটি পরিবাহীতে তড়িপ্রবাহের ফলে যে তাপ উৎপন্ন হয় তা কীসের উপর নির্ভর করে?

উত্তরঃ পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ- (i)  পরিবাহীর তড়িৎ প্রমাহমাত্রা, (ii) পরিবাহীর রোধ (iii) তড়িৎপ্রবাহের সময়ের উপর নির্ভর করে।

  1. সমপ্ৰথচ্ছেদ বিশিষ্ট একটি লম্বা ও একটি ছোটো তামার তারের মধ্য দিয়ে একই সময় একই পরিমাণ তড়িৎ পাঠালে কোন তারটি বেশি উত্তপ্ত হবে ও কেন ?

উত্তরঃ সমপ্রথচ্ছেদ বিশিষ্ট একটি লম্বা ও একটি ছোটো তামার তারের মধ্য দিয়ে একই সময় একই পরিমাণ তড়িৎ পাঠালে লম্বা তারটি বেশি উত্তপ্ত হবে।

কারণ আমরা জানি,  =  অর্থাৎ একই উপাদান ও একই বিশিষ্ট তারের রোধ ওর দৈর্ঘ্যের সমানুপাতিক। লম্বা তারটির রোধ ছোটো তারটির রোধ অপেক্ষা বেশি হয়। আবার জুলের সূত্রানুযায়ী, পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহমাত্রা ও তড়িৎপ্রবাহের সময় অপরিবর্তিত থাকলে, পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ রোধের সমানুপাতিক হয়। অর্থাৎ, পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ রোধের সমানুপাতিক হয়। অর্থাৎ, পরিবাহীর রোধ বেশি হলে ওতে উৎপন্ন তাপের পরিমাণ বেশি হবে। লম্বা তারটির রোধ বেশি হওয়ায় লম্বা তারটি বেশি উত্তপ্ত হবে।

  1. ইলেকট্রিক হিটারে নাইক্রোম তার ব্যবহার করা হয় কেন?

উত্তরঃ ইলেকট্রিক হিটারে নাইক্রোম তার ব্যবহারের কারণ

(i) নাইক্রোম হল নিকেল (Ni), ক্রোমিয়াম (Cr) ও লোহার (Fe) সংকর ধাতু। এর গলনাঙ্ক রোধাঙ্ক খুব বেশি হয়। রোধাঙ্ক বেশি হওয়ায় রোধও বেশি। আবার রোধ বেশি হওয়ায় জুলের সূত্রানুযায়ী, তড়িৎপ্রবাহের ফলে তারটিতে বেশি তাপ উৎপন্ন হয়। আর গলনাঙ্ক বেশি হওয়ায় উচ্চ তাপমাত্রাতেও তারটি গলে যায় না।

(ii) উচ্চ উষ্ণতাতেও নাইক্রোম বায়ুর সংস্পর্শে এলে বায়ুর অক্সিজেন দ্বারা জারিত হয় না।

  1. ফিউজ তারের বৈশিষ্ট্য কী? এটি কেন ব্যবহার করা হয় ?

উত্তরঃ বৈশিষ্ট্য : ফিউজ তারের রোধাঙ্ক উচ্চ মানের এবং গলনাঙ্ক কম।

ব্যবহার : অতিরিক্ত তড়িৎপ্রবাহজনিত ক্ষতি থেকে ফিউজ তার বাড়ির বৈদ্যুতিক লাইন ও লাইনের সঙ্গে যুক্ত যন্ত্রপাতিকে রক্ষা করে।

  1. শর্ট সার্কিট’ বলতে কী বোঝো ?

উত্তরঃ  ‘শর্ট সার্কিট’ : কোনো কারণে কোনো তড়িৎ বর্তনীর লাইন দুটির মধ্যে সরাসরি সংযোগ ঘটলে বর্তনীর রোধ প্রায় শূন্য হয়। একে শর্ট সার্কিট বলা হয়। শর্ট সার্কিট হলে বর্তনীতে প্রবাহমাত্রা খুব বেড়ে যায়। ফলে লাইনে প্রচুর তাপ উৎপন্ন হয়ে আগুন ধরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

  1. তড়িৎশক্তির এসআই একক কী? এর সংজ্ঞা দাও।

উত্তরঃ তড়িৎ শক্তির এসআই একক জুল।

জুলঃ  1 কুলম্ব পরিমাণ তড়িৎ আধানকে 1 ভোস্ট বিভবপার্থক্য অতিক্রম করতে যে কার্য করতে হয় তাকে 1 জুল বলে।

  1. তড়িৎ প্রবাহমাত্রা (I), রোধ (R) ও তড়িৎ ক্ষমতা (P) এদের মধ্যে সম্পর্ক নির্ণয় করো।

উত্তরঃ তড়িৎ ক্ষমতা   = 

=  উত্তরঃ 

আবার ওহমের সূত্রনুযায়ী,  বা  

  1. CFL ও LED -র পুরো নাম কী ?

উত্তরঃ CFL-এর পুরো নাম Compact Fluorescent Lamp.

LED -এর পুরো নাম Light Emitting Diode.

  1. দক্ষিণ হস্ত মুষ্টি সূত্রটি বিবৃত করো।

উত্তরঃ দক্ষিণ হস্ত মুষ্টি সূত্র: একটি তড়িৎবাহী তারকে ডান হাত দিয়ে যদি এমনভাবে মুষ্টিবদ্ধ করা হয় যাতে বুড়ো আঙুল তড়িৎপ্রবাহের অভিমুখ নির্দেশ করে তবে অন্য আগুলগুলির অগ্রভাগ উৎপন্ন চৌম্বকক্ষেত্রের বলরেখার অৰ্থাৎ চৌম্বকক্ষেত্রের অভিমুখ নির্দেশ করবে।

  1. তড়িৎপ্রবাহের উপর চুম্বকের ক্রিয়া বলতে কী বোঝো ?

উত্তরঃ তড়িৎপ্রবাহের উপর চুম্বকের ক্ৰিয়া : তড়িৎপ্রবাহ যেমন চুম্বকের উপর ক্রিয়া করে চুম্বক মেরুকে বিক্ষিপ্ত করার সময় ওর ওপর একটি বল প্রয়োগ করে। এই কারণে পরিবাহী নিজ অবস্থান থেকে বিক্ষিপ্ত হয়। একেই তড়িৎপ্রবাহের উপর। চুম্বকের ক্রিয়া বলে।

  1. বার্লোরচন্দ্র পরিবর্তী প্রবাহে কাজ করে না কেন?

উত্তরঃ বার্লোরচক্র পরিবর্তী প্রবাহে (AC)কাজ করে না। কারণ বালোরচক্র তড়িৎপ্রবাহের উপর চুম্বকের ক্রিয়া’ এই নীতির উপর প্রতিষ্ঠিত। চুম্বকক্ষেত্রের অভিমুখ অপরিবর্তিত রেখে তড়িৎপ্রবাহের অভিমুখ বিপরীত দিকে হলে চক্রের ঘূর্ণনের অভিমুখ বিপরীত হবে। পরিববর্তী প্রবাহে (AC)তড়িৎ প্রবাহের অভিমুখ প্রতি মুহুর্তে পরিবর্তিত হয়। এক্ষেত্রে চক্রটি একবার একদিকে ও পরে বিপরীত দিকে ঘুরতে চেষ্টা করবে। ফলে চক্রের ঘূর্ণন হবে না। কেবলমাত্র সমপ্রবাহে (DC)-তে বালোরচক্র কাজ করবে।

26.বৈদ্যুতিক মোটরের শক্তি কী কী উপায়ে বাড়ানো যায়?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক মোটরের শক্তি বাড়ানোর উপায় :

(i) আর্মেচারের মধ্যে তড়িৎপ্রবাহের মাত্রা বাড়িয়ে ।

(ii)  আর্মেচারের তারের পাকসংখ্যা বাড়িয়ে ।

(iii)  ক্ষেত্র চুম্বকের চৌম্বকশক্তি বাড়িয়ে ।

  1. লেঞ্জের সূত্র বিবৃত করো।

উত্তরঃ লেঞ্জের সূত্র : তড়িৎচুম্বকীয় আবেশের ক্ষেত্রে আবিষ্ট তড়িৎপ্রবাহের অভিমুখ এমন হয় যে, যে কারণে আবিষ্ট তড়িৎপ্রবাহের সৃষ্টি হয়, আবিষ্ট প্রবাহমাত্রা সর্বদা সেই কারণকে বাধা দেয়।

  1. পরিবর্তীপ্রবাহ কী? পরিবতী প্রবাহের ক্ষেত্রে প্রবাহমাত্রা সময়-লেখচিত্রটি কীরূপ ?

উত্তরঃ পরিবর্তী প্রবাহ: যে তড়িৎ প্রবাহমাত্রা নির্দিষ্ট সময় অন্তর অভিমুখ পরিবর্তন করে এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পর্যায়ক্রমে মান পরিবর্তন করে তাকে পরিবর্তী প্রবাহ বলে।

  1. খ্রিপিন প্ল্যাগ কী? এটি কোন কাজে ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ থ্রি-পিন প্ল্যাগ : যে প্ল্যাগে তিনটি পিনের ব্যবস্থা থাকে তাকে প্লি-পিন প্ল্যাগ বলে। ওপরের বড়ো ছিদ্রটি আর্থ কানেকশনের জন্য ডান দিকের ছিদ্রটি লাইভ তারের এবং বামদিকের ছিদ্রটি নিউট্রাল তারের কানেকশনের জন্য।

  1. আর্থ তারের বৈশিষ্ট্য কী ?

উত্তরঃ আর্থ তারের বৈশিষ্ট্য : তারের রোধ কম হওয়া উচিত। কারণ তারের মধ্য দিয়ে নির্দিষ্ট সীমার বেশি তড়িৎপ্রবাহ হলে সার্কিটের ফিউজ তারটি পুড়ে গিয়ে লাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে  দেয়।

  1. থ্রি -পিন প্লাগ টপের সঙ্গে লাগানো তার তিনটির অন্তরক আবরণের রং কী কী ?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক লাইনে তিনটি অন্তরিত তামার তার ব্যবহৃত হয়। তারগুলিকে চেনার জন্য তারের আবরণের তিনটি আলাদা রং নির্দিষ্ট করা হয়। একে তারের বর্ণ সংকেত বলে। নতুন আন্তর্জাতিক নিয়মানুসারে লাইভ তারকে বাদামি, নিউট্রাল তারকে হালকা নীল ও আর্থ তারকে সবুজ বা হলুদ বর্ণের করা হয়।

দীর্ঘ প্রশ্নোত্তর : (মান – 3) Madhyamik Physical Science Suggestion – চলতড়িৎ (অধ্যায়-৬) প্রশ্নউত্তর – মাধ্যমিক ভৌতবিজ্ঞান সাজেশন

  1. কুলম্বের সূত্রের গাণিতিক রূপটি লেখো।

উত্তরঃ মনে করি, দুটি আধান  ও  পরস্পর থেকে  দূরত্বে অবস্থিত। এদের মধ্যে কার্যকর বলের মান F হলে, কুলম্বের সূত্রাণুযায়ী,   এবং   

 বা,  (k একটি ধ্রুবক )

  1. ওহমের সূত্রটি লেখো ও ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ ওহমের সূত্র : উষ্ণতা, উপাদান এবং অন্যান্য ভৌত অবথা অপরিবর্তিত থাকলে, কোনো পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহমাত্রা ওই পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভবপার্থক্যের সমানুপাতিক হবে।

ব্যাখ্যা : মনে করি, AB একটি পরিবাহী। পরিবাহীর A প্রান্তের বিভব VA এবং B প্রান্তের বিভব VB মনে করি,

VA > VB ।  

সুতরাং, পরিবাহীতে A প্রান্ত থেকে B প্রান্তের দিকে তড়িৎপ্রবাহ হবে, তড়িৎ প্রবাহমাত্রা  হলে, ওহমের সূত্রাণুযায়ী, (উষ্ণতা উপাদান ও অন্যান্য ভৌত অবস্থা অপরিবর্তিত থাকে)।

বা, (যদি, ধরা হয়)। বা, পরিবাহীর রোধ)।

  1. কোশের অভ্যন্তরীণ রোধ কোন কোন বিষয়ের উপর নির্ভর করে ?

উত্তরঃ কোশের অভ্যন্তরীণ রোধ নিম্নলিখিত বিষয়গুলির উপর নির্ভর করে।

(i)  তড়িদ্দারদ্বয়ের মধ্যবর্তী দূরত্বের উপর : তড়িদ্দারদ্বয়ের মধ্যবর্তী দূরত্ব বাড়ালে অভ্যন্তরীণ রোধ বৃদ্ধি পায়।

(ii) সক্রিয় তরলের মধ্যে তড়িদ্দারদ্বয়ের নিমজ্জিত অংশের ক্ষেত্রফলের  উপরঃ নিমজ্জিত অংশের ক্ষেত্রফল বৃদ্ধি পেলে অভ্যন্তরীণ রোধ হ্রাস পায়।

(iii)  কোশ মধ্যস্থ সক্রিয় তরলের প্রকৃতির উপরঃ সক্রিয় তরলের পরিবাহিতা বৃদ্ধি পেলে কোশের অভ্যন্তরীণ রোধের মান হ্রাস পায়।

  1. পরিবাহীর রোধ, প্রথচ্ছেদ ও দৈর্ঘ্যের মধ্যে সম্পর্ক নির্ণয় করো।

উত্তরঃ মনে করি, কোনো পরিবাহীর দৈর্ঘ্য  প্রথচ্ছেদ রোধ । পরিবাহীর উপাদান, উষ্ণতা  অপরিবর্তিত থাকলে  ; যখন প্রথচ্ছেদ  স্থির।

  ; যখন দৈৰ্ঘ্য থির ।

সুতরাং,  ; যখন এবং  উভয়েই পরিবর্তিত।

বা  (যেখানে =  ধুবক)।

  1. একটি ধাতব তারের ভিতর দিয়ে তড়িৎ প্রবাহিত হচ্ছে। তারের রোধ ও তড়িৎ প্রবাহের সময় অপরিবর্তিত রেখে তারের দুই প্রান্তের বিভবপ্রভেদ দ্বিগুণ করা হলে তারে উৎপন্ন তাপের কী পরিবর্তন হবে?

উত্তরঃ জুলের সূত্রানুযায়ী, পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ  ক্যালোরি।

ওহমের সূত্রানুযায়ী,  বা,   ∴   

রোধ (R) ও তড়িৎপ্রবাহের সময় (t) অপরিবর্তিত থাকলে পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ (H) পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভবপার্থক্যের বর্গের সমানুপাতিক হয়। সুতরাং, পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ প্রথম ক্ষেত্রে উৎপন্ন তাপের  বা  গুণ হবে।

  1. কিলোওয়াট-ঘন্টা (KWh) বা BOT একক কাকে বলে?

উত্তরঃ কিলোওয়াট-ঘণ্টা (KWh) বা BOT : এক কিলোওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন যন্ত্র এক ঘন্টা চললে যে তড়িৎশক্তি ব্যয় হয়, তাকে 1 কিলোওয়াট-ঘন্টা (KWh) বা 1 বোর্ড অব ট্রেড ইউনিট বা BOT একক বলে।

কিলোওয়াট – ঘন্টা (KWh)। 

==============================================================================================

আলো (অধ্যায়-৫)

শূন্যস্থান পূরণ করো: (মান – 1) দশম শ্রেণীর ভৌতবিজ্ঞান – আলো (অধ্যায়-৫) সাজেশন | WBBSE Class 10th Physical Science Suggestion

  1. দীর্ঘদৃষ্টি ত্রুটিযুক্ত চোখে________ ক্ষমতাযুক্ত চশমা ব্যবহারকরে ত্রুটিমুক্ত করা হয়।

Answer :[ধনাত্মক]

2.লেন্সের দুটি বক্রতা কেন্দ্রের সংযোগী সরলরেখাকে লেন্সটির________ বলে।

Answer :[বক্রতা কেন্দ্র]

  1. দুটি নির্দিষ্ট মাধ্যমের বিভেদতলে একটি নির্দিষ্ট বর্ণের আলোর  প্রতিসরণ হলে আপতন কোণের সাইন ও প্রতিসরণ কোণের সাইনের অনুপাত সর্বদা________ ।

Answer :[ধ্রুবক]

  1. যে লেন্সের মধ্যভাগ মোটা ও দুই দিক ক্রমশ সরু তাকে________ লেন্স বলে।

Answer :[উত্তল]

  1. উত্তল লেন্সে বস্তু অসীমে থাকলে, প্রতিবিম্ব________ অবস্থান করে।

Answer :[ফোকাসে]

সত্য বা মিথ্যা নির্বাচন করো: (মান – 1) দশম শ্রেণীর ভৌতবিজ্ঞান – আলো (অধ্যায়-৫) সাজেশন | WBBSE Class 10th Physical Science Suggestion

  1. সুস্থ মানুষের চোখের দূর বিন্দুর অবস্থান 100 cm [F]
  2. উপাক্ষীয় রশ্মির ক্ষেত্রে  =  [F]
  3. প্রিজমের যে-কোনো প্রান্তরেখার বিপরীত তলকে প্রিজমের ভূমি বলে। [T]
  4. স্বল্পসৃষ্টি ত্রুটি যুক্ত চোখে ঋণাত্মক চশমা ব্যবহার করা হয়। [T]
  5. রঙিন কাচ মিহিভাবে চূর্ণ করলে বেগুনি দেখায়।  [T]
  6. দৃশ্যমান আলোর তরঙ্গ দৈর্ঘ্যার পাল্ল 410-7m  8 10-7।        [T]

অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর: (মান – 1) দশম শ্রেণীর ভৌতবিজ্ঞান – আলো (অধ্যায়-৫) সাজেশন | WBBSE Class 10th Physical Science Suggestion

  1. দৃশ্যমান আলোর তরঙ্গগদৈর্ঘ্য কত?

Answer : দৃশ্যমান আলোর তরঙ্গ দৈর্ঘ্য প্রায় 4000 A থেকে 8000 A পর্যন্ত বিস্তৃত।

  1. শূন্য মাধ্যমে আলোর বেগের মান কত?

Answer : 3 108ms-1 ।

  1. – রশ্মির একটি ব্যবহার লেখো।

Answer : রেডিয়োথেরাপিতে  রশ্মি ব্যবহৃত হয়।

  1. একগুচ্ছ লাল গোলাপফুলকে নীল আলোয় দেখলে কী রং দেখাবে?

Answer : কালো ।

  1. দন্ত চিকিৎসক কোন ধরনের দর্পণ ব্যবহার করেন ?

Answer : অবতল দর্পণ ।

  1. সুস্থ ব্যক্তির নিকট বিন্দুর দূরত্ব কত?

Answer : 25 cm ।

  1. দীর্ঘদৃষ্টি ত্রুটির ক্ষেত্রে কী ধরনের লেন্স ব্যবহার করা হয়?

Answer : উত্তল লেন্স।

  1. দীর্ঘদৃষ্টিসম্পন্ন ব্যক্তি কী ধরনের চশমা ব্যবহার করেন?

Answer : ধনাত্মক ক্ষমতাযুক্ত চশমা।

  1. সাদা আলো প্রিজমে পড়লে কোন বর্ণের আলো বেশি কোণে বেঁকে যায়?

Answer : বেগুনি বর্ণের আলো।

  1. কোন দর্পণ সর্বদা অসদ ও খর্বাকৃতি প্রতিবিম্ব গঠন করে?

Answer : উত্তল দর্পণ।

  1. কোন বর্ণের প্রতিসরাংক নিদিষ্ট মাধ্যমের ক্ষেত্রে সর্বাধিক?

Answer : বেগুনি বর্ণের।

  1. শূন্যস্থানের পরম প্রতিসরাঙ্ক কত?

Answer : শূন্যস্থানের পরম প্রতিসরাঙ্ক 1।

  1. সমান্তরাল কাচ ফলকে প্রতিসরণের ফলে আপতিত রশ্মির চ্যুতি কত হয়?

Answer : আপতিত রশ্মির চুতি শূন্য হয়।

  1. কোন শর্তে উত্তল লেন্স পর্দায় সদ প্রতিবিম্ব সৃষ্টি করে?

Answer : বস্তু ফোকাস দূরত্বের চেয়ে বেশি দূরত্বে থাকলে।

  1. জলের ভিতরে উৎপন্ন বায়ু বুদবুদ অভিসারী না অপসারী লেন্সের মতো আচরণ করে?

Answer : অপসারী লেন্সের মতো আচরণ করে।

  1. লেন্সের আলোককেন্দ্রের একটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Answer : লেন্সের আলোককেন্দ্র দিয়ে নির্গত রশ্মি কোনো চুতি হয় না।

  1. বিবর্ধক কাচে কী ধরনের লেন্স ব্যবহৃত হয়?

Answer : উত্তল লেন্স।

  1. ক্যামেরায় কোন ধরনের লেন্স ব্যবহার করা হয়?

Answer : উত্তল লেন্স বা উত্তল লেন্স সমবায়।

বহুবিকল্পভিত্তিক প্রশ্নোত্তর : (মান – 1) দশম শ্রেণীর ভৌতবিজ্ঞান – আলো (অধ্যায়-৫) সাজেশন | WBBSE Class 10th Physical Science Suggestion

  1. মানুষের চোখের নিকট বিন্দু ও দূরবিন্দু দুটির দূরত্ব যথাক্রমে – a. 50 cm,অসীম b. 25 cm, 50 cm c. 0, 25 Cm d. 25 cm, অসীম

Answer :[d] 25 cm, অসীম

  1. যখন আমরা চোখ দিয়ে দেখি,তখন রেটিনাতে বস্তুর যে প্রতিবিম্ব গঠিতহয় তা হল – a. সদ, অবশীর্ষ b. অসদ, সমশীর্ষ c. অসদ, অবশীর্ষ d. সদ, সমশীর্ষ

Answer :[a] সদ, অবশীৰ্ষ

  1. এক ব্যক্তি লাল রঙের জামা এবং সাদা রঙের প্যান্ট পরে আছে। নীল আলোকে জামা ও প্যান্টের রং হবে যথাক্রমে – a. লাল এবং সাদা b. নীল এবং সাদা c. কালো এবং নীল d. লাল এবং নীল

Answer :[c] কালো এবং নীল

  1. আলোর তড়িম্বকীয় তত্ত্বের জনক – a. ম্যাক্স প্ল্যাক b. ম্যাক্সওয়েল c. নিউটন d. হাইগেনস

Answer :[b] ম্যাক্সওয়েল

  1. উত্তল দর্পণ দ্বারা গঠিত প্রতিবিম্ব হবে – a. সমশীর্ষ ও ক্ষুদ্র b. সমশীর্ষ ও বড়ো c. অবশীর্ষ ও ক্ষুদ্র d. অবশীর্ষ ও বড়ো

Answer :[a] সমশীর্ষ ও ক্ষুদ্র

  1. মোটর গাড়ির হেডলাইটে কী ধরনের দর্পণ ব্যবহার করা হয়? – a. সমতল দর্পণ b. উত্তল দর্পণ c. অবতল দর্পণ d. অধিবৃত্তীয় দর্প

Answer :[d] অধিবৃত্তীয় দর্পণ

7.একটি অবতল দর্পণের বক্রতা ব্যাসার্ধ 10 cm হলে ফোকাস দৈর্ঘ্য হবে – a. 10 cm b. 5 cm c. 20 cm d. 15 c

Answer :[b] 5 cm

  1. গাড়ির পিছনের দৃশ্য দেখার জন্য চালকের সামনে যে দর্পণ ব্যবহার করা হয় তা হল – a. অবতল  b. সমতল c. উত্তল d. অধিবৃত্তাকার

Answer :[c] উত্তল

  1. সূর্যোদয়ের পূর্বে ও সূর্যাস্তের পরেও কিছুক্ষণ সূর্যকে দেখা যায়। এর কারণ, আলোকের – a. বিছুরণ b. বিক্ষেপণ c.প্রতিফলন d. প্রতিসরণ

Answer :[d] প্রতিসরণ

  1. একটি আলোকরশ্মি ঘনতর মাধ্যমে প্রবেশ করলে – a. কম্পাক বাড়ে b. তরঙ্গদৈর্ঘ্য বাড়ে c. বেগ কমে d. অভ্যন্তরীণ পূর্ণ প্রতিফলনহতে পারে

Answer :[c] বেগ কমে

  1. একটি রশ্মি বায়ু থেকে কাচের ফলকে প্রবেশ করলে এর – a. তরঙগদৈর্ঘ্য কমে যায় b. তরঙ্গগদৈর্ঘ্য বেড়ে যায় c. কম্পাঙ্ক বেড়ে যায় d. তরঙগদৈর্ঘ্য এবং কম্পাঙ্ক উভয়ই

Answer :[a] তরঙ্গগদৈর্ঘ্য কমে যায়

  1. প্রিজমে নীচের কোন বর্ণের আলোর চ্যুতি সর্বাপেক্ষা বেশি? – a. হলুদ b. নীল c. সবুজ d. কমলা

Answer :[b] নীল

  1. একটি সমান্তরাল কাচ ফলকের ফোকাস দূরত্ব হল – a. শূন্য b. 100 cm c. 200 cm d. অসীম

Answer :[d] অসীম

  1. উত্তল লেন্স দ্বারা গঠিত কোনো বস্তুর প্রতিবিম্বের ক্ষেত্রে কোনটি সম্ভব নয়? – a.  বিবর্ধিত, সমশীর্ষ b. খর্বাকৃতি, সমশীর্ষ c. বিবর্ধিত, অবশীৰ্ষ d. খর্বাকৃতি, অবশির্ষ

Answer :[b] খর্বাকৃতি, সমশীর্ষ

  1. বস্তুর সকল অবস্থানেই অসদ এবং সমশীর্য প্রতিবিম্ব গঠন করতে পারে – a. উত্তল লেন্স b. অবতল লেন্স c.  অবতল দর্পন d. কোনোটিই নয়

Answer :[b] অবতল লেন্স

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর: (মান – 2) দশম শ্রেণীর ভৌতবিজ্ঞান – আলো (অধ্যায়-৫) সাজেশন | WBBSE Class 10th Physical Science Suggestion

  1. ফোকাস কাকে বলে?

Answer : গোলীয় দর্পণের ওপর একগুচ্ছ সমান্তরাল আলোকরশ্মি প্রধান অক্ষের সমান্তরালভাবে দর্পণের উপর পড়লে প্রতিফলনের পর তারা প্রধান অক্ষের ওপর যে বিন্দুতে মিলিত হয় বা যে বিন্দু থেকে অপসৃত হচ্ছে বলে মনে হয় তাকে মুখ্য ফোকাস বা ফোকাস বলে।

  1. আলোর প্রতিসরণ কাকে বলে?

Answer : আলোকরশ্মি যখন একটি সমসত্ত্ব স্বচ্ছ মাধ্যম থেকে ভিন্ন ঘনত্বের অপর একটি সমসত্ত্ব স্বচ্ছ মাধ্যমের ওপর তির্যকভাবে পড়ে তখন ওই দ্বিতীয় মাধ্যমের বিভেদতল থেকে আলোকরশ্মির গতির অভিমুখের পরিবর্তন ঘটে। ওই ঘটনাকে আলোর প্রতিসরণ বলে।

  1. প্রতিসরণ কোণ কাকে বলে?

Answer : প্রতিসৃত রশ্মি অভিলম্বের সঙ্গে যে কোন উৎপন্ন করে তাকে প্রতিসরণ কোণ বলে।

  1. প্রতিসারক কোণ কাকে বলে?

Answer : প্রতিসারক কোণ : দুটি প্রতিসারক তল মিলিত হয়ে যে কোণ উৎপন্ন করে তাকে প্রিজমের প্রতিসারক কোণ বলে।

  1. লেন্সের বক্রতা ব্যাসার্ধ কাকে বলে?

Answer : বক্রতা ব্যাসার্ধ (Centre of curvature) : লেন্সের কোনো গোলীয় তল যে গোলকের অংশ সেই গোলকের ব্যাসার্ধকে ওই তলের বক্রতা ব্যাসার্ধ বলে।

  1. অবতল লেন্সকে অপসারী লেন্স বলা হয় কেন?

Answer : অবতল লেন্স আপতিত সমান্তরাল রশ্মিগুচ্ছকে অপসারী রশ্মিগুচ্ছে পরিণত করে বলে অবতল লেন্সকে অপসারী লেন্স বলে। মাধ্যমের প্রতিসরাঙ্কে লেন্সের উপাদানের প্রতিসরাঙ্কের চেয়ে বেশি হলে উত্তল লেন্স অপসারী লেন্সের মতো এবং অবতল লেন্স অভিসারী লেন্সের মতো আচরণ করে।

  1. ফোকাস দূরত্ব কাকে বলে? অথবা, উত্তল লেন্সের ফোকাস দূরত্ব বলতে কী বোঝো? চিত্রের সাহায্যে দেখাও।

Answer : লেন্সের আলোক কেন্দ্র থেকে প্রধান ফোকাস পর্যন্ত দূরত্বকে ফোকাস দূরত্ব (OF) বলে। একে ‘ f ‘ চিহ্ন দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

  1. সূর্যের আলোয় সবুজ পাতা সবুজ দেখায় কেন?

Answer : সবুজ পাতার ওপর সাদা আলো পড়লে পাতাগুলি সবুজবর্ণের আলো ছাড়া অন্য সকল বর্ণের আলো শোষণ করে নেয় কিন্তু সবুজ বর্ণের আলোকে প্রতিফলিত করে ফলে পাতাগুলি সবুজ দেখায়।

  1. নীল কাচের মধ্য দিয়ে তাকালে একটি লাল ফুলকে কালো দেখায় কেন?

Answer : লাল ফুল সাদা আলোর কেবলমাত্র লাল বর্ণের প্রতিফলিত করে, বাকি বর্ণগুলি শোষণ করে। লাল ফুল থেকে নির্গত লাল বর্ণ নীল কাচ কর্তৃক শোষিত হওয়ায় চোখে কোনো আলো এসে পৌছায় না। তাই নীল কাচের মধ্য দিয়ে তাকালে। লাল ফুলকে কালো দেখায়।

  1. তরঙ্গদৈর্ঘ্যের সংজ্ঞা দাও।

Answer : কম্পাঙ্ক : এক সেকেন্ডে কোনো মাধ্যমের মধ্যে যতগুলি পূর্ণতরঙ্গেগর সৃষ্টি হয়—সেই সংখ্যাকেই ওই তরঙ্গেগর কম্পাঙ্ক বলে। কম্পাঙ্কের SI একক হল হার্জ (hertz বা Hz)।

  1. আলোর বিক্ষেপণ কাকে বলে?

Answer : বায়ুমণ্ডলে অবস্থিত বিভিন্ন গ্যাসীয় অণু অপেক্ষাকৃত দীর্ঘ তরঙ্গদৈর্ঘ্যবিশিষ্ট সূর্যালোক শোষণ করে এবং শোষিত আলোকরশ্মিকে চর্তুদিকে বিস্তার ঘটায়, এই পদ্ধতিতে আলোর চারদিকে বিস্তৃত হওয়াকেই আলোর বিক্ষেপণ বলে।

  1. কোনো সবুজ বস্তুকে সাদা আলোর দ্বারা আলোকিত করলে সবুজ দেখায় কেন? বস্তুটিকে হলুদ আলোর দ্বারা আলোকিত করলে বস্তুটির রং কী দেখাবে?

Answer : সবুজ বস্তুর উপর সাদা আলো পড়লে বস্তুটি সবুজ বর্ণের আলো প্রতিফলিত করে। এবং অন্যান্য বর্ণের আলো শোষণ করে। সেজন্য বস্তুটিকে সবুজ দেখায়। বস্তুটিকে হলুদ আলোর দ্বারা আলোকিত করলে বস্তুটি ওই আলো শোষণ করে নেবে। ফলে বস্তুটিকে কালো দেখাবে।

দীর্ঘ প্রশ্নোত্তর : (মান – 3) দশম শ্রেণীর ভৌতবিজ্ঞান – আলো (অধ্যায়-৫) সাজেশন | WBBSE Class 10th Physical Science Suggestion

  1. প্রতিসরাংক কাকে বলে?

Answer : প্রতিসরাক : একটি নির্দিষ্ট বর্ণের আলো ও দুটি নির্দিষ্ট মাধ্যমের জন্য প্রথম মাধ্যমে আপতন কোণের Sine ও দ্বিতীয় মাধ্যমে প্রসরণ কোণের Sine -এর অনুপাতকে প্রতিসরাকে বলা হয়। চিহ্ন দ্বারা প্রতিসরাককে প্রকাশ করা হয়। অর্থাৎ,    

  1. একটি একবণী আলোক রশ্মিগুচ্ছ শূন্যস্থান থেকে  প্রতিসরাঙ্কের কোনো মাধ্যমে প্রতিসৃত হল। আপতিত তরঙ্গদৈর্ঘ্য ও প্রতিসৃত তরঙ্গগদৈর্ঘ্যের মধ্যে সম্পর্ক কীরূপ?

অথবা,

আপতিত আলো এবং প্রতিসৃত আলোর তরঙ্গদৈর্ঘ্যের অনুপাত হল মাধ্যমের প্রতিসরাঙ্ক-ব্যাখ্যা করো।

Answer : আমরা জানি ,কোনো মাধ্যমের প্রতিসরাঙ্ক  =  যেখানে c ও v  হল যথাক্রমে শূন্য মাধ্যমে ও উক্ত মাধ্যমে আলোর বেগ। আবার, তরঙ্গবে = তরঙ্গের কম্পাঙ্ক  তরঙ্গদৈর্ঘ্য হওয়ায়

 =  =  =  , যেখানে  ও হল যথাক্রমে শুন্য মাধ্যমে উক্ত মাধ্যমের আলোর তরঙ্গদৈর্ঘ্য।

∴ প্রতিসরাঙ্ক হল আপতিত আলো প্রতিসৃত আলোর তরঙ্গদৈর্ঘ্যর অনুপাত।

  1. ও অবতল লেন্সের মধ্যে দুটি পার্থক্য উল্লেখ করো।

Answer : উত্তল লেন্স

অবতল লেন্স

  1. এই লেন্সের মধ্যভাগ মোটা ও দুইপ্রান্ত ক্রমশ সরু।
  2. এই লেন্সের মধ্যভাগ সরু ও প্রান্ত ক্রমশ মোটা।
  3. উত্তল লেন্স সমান্তরাল আলোকরশ্মি গুচ্ছকে অভিসারী রশ্মিতে পরিণত করে।
  4. অবতল লেন্স সমান্তরাল রশ্মিগুচ্ছকে অপসারী রশ্মিগুচ্ছকে অপসারী রশ্মিতে পরিণত করে।
  5. স্নেলের সূত্রের সাহায্যে আলোর বিছুরণের ব্যাখ্যা দাও।

Ans  স্নেলের সূত্রানুযায়ী    = ধ্রুবক (i = আপতণ কোণ, r = প্রতিসরণ কোণ) এই দ্রুবকটিকে প্রথম মাধ্যমের সাপেক্ষে দ্বিতীয় মাধ্যমের প্রতিসরাঙ্ক বলে। এই প্রতিসরাঙ্কের মান- (i) আপতিত রশ্মির বর্ণের ওপর এবং (ii) প্রথম ও দ্বিতীয় মাধ্যমের প্রকৃতির ওপর নির্ভর করে। এখন শূন্য বা বায়ু মাধ্যমে প্রতিটি বর্ণের আলোর বেগ সমান হলেও কোনো আলোকীয় মাধ্যমে ভিন্ন বর্ণের আলোর বেগ ভিন্ন হয়। দৃশ্যমান আলোর ক্ষেত্রে বেগুণি আলোর জন্য মাধ্যমের প্রতিসরাঙ্ক সর্বোচ্চ ও লাল আলোর জন্য সর্বনিম্ন হয়। প্রতিসরাকের এই পরিবর্তনের জন্য প্রতিসরণের ফলে ভিন্ন বর্ণের আলো ভিন্ন কোণে বেঁকে যায়। একই আপতন কোণের জন্য তাই সাদা আলোর মধ্যে উপস্থিত বিভিন্ন বর্ণের আলোর প্রতিসরণ বিভিন্ন হয়। এই কারণে সাদা আলো বিছুরিত হয়।

5.কাচের পরম প্রতিসরাঙ্ক 1.5 বলতে কী বোঝো ?

অথবা,

জলের প্রতিসরাঙ্ক  1.33 বলতে কী বোঝো?

Answer : কাচের পরম প্রতিসরাঙ্ক 1.5 বলতে বোঝায় যে, কোনো আলোকরশ্মি যখন বায়ু

থেকে কাচে প্রতিসৃত হয় তখন আপতন কোণের সাইন এবং প্রতিসরণ কোণের সাইনের অনুপাত 1.5 হয়। অন্যভাবে বললে শূন্য মাধ্যমে আলোর বেগ এবং কাচ মাধ্যমে আলোর বেগের অনুপাত 1.5 অর্থাৎ আলোর বেগের অনুপাত 1.5 অর্থাৎ  = 1.5  ।

===============================================================

“ক” বিভাগ 

(১) বহু বিকল্প ভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি করে বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি সঠিক সেটি লেখো :-

(১.১) 3 ওহম ও 6 ওহম রোধের সমান্তরাল সমবায়ের তুল্য রোধ – 

(ক) 2ওহম 

(খ) 4ওহম 

(গ) 9ওহম 

(ঘ) 3ওহম 

উত্তর:- (ক) 2ওহম

(১.২) তড়িৎ আধানের SI একক হল – 

(ক) ভোল্ট 

(খ) কুলম্ব 

(গ) ওহম 

(ঘ) ওয়াট 

উত্তর:- (খ) কুলম্ব

(১.৩) 240V-60W বাতির রোধ – 

(ক) 480ওহম 

(খ) 960ওহম 

(গ) 240ওহম 

(ঘ) 720 ওহম

উত্তর:- (খ) 960ওহম

(১.৪) রোধাঙ্কের SI একক হল – 

(ক)ওহন-সেমি 

(খ)ওহম-সেমি-¹ 

(গ)ওহম-মিটার-¹ 

(ঘ) ওহম-মিটার 

উত্তর:- (ঘ) ওহম-মিটার

(১.৫) লাইভ তারের রং – 

(ক) লাল 

(খ) কালো 

(গ) সবুজ 

(ঘ) আকাশি

উত্তর:- (ক) লাল

(১.৬) 1 BOT হল – 

(ক) 1ওয়াট-ঘন্টা 

(খ) 1কিলোওয়াট ঘন্টা 

(গ) 100ওয়াট-ঘন্টা 

(ঘ) 1মেগাওয়াট-ঘন্টা 

উত্তর:- (খ) 1কিলোওয়াট ঘন্টা

(১.৭) নাইব্রোম হল – 

(ক) Ni, Cr, Al এর সংকেত ধাতু 

(খ) Ni,Cr, Fe এর সংকেত ধাতু 

(গ) Al, Cr, Fe এর সংকেত ধাতু 

(ঘ) Ni, Cr, Fe এর সংকেত ধাতু

উত্তর:- (খ) Ni,Cr, Fe এর সংকেত ধাতু

(১.৮) ফ্লেমিং বামহস্ত নিয়মে বৃদ্ধাঙ্গুষ্টটি নির্দেশ করে – 

(ক) চৌম্বকক্ষেএের দিক 

(খ) তড়িৎক্ষেএের দিক 

(গ) পরিবাহীর গতির অভিমুখ 

(ঘ) কোনোটিই নয়

উত্তর:- (গ) পরিবাহীর গতির অভিমুখ

(১.৯) যান্ত্রিক শক্তি থেকে তড়িৎশক্তি উৎপন্ন করা যায় – 

(ক) বার্লের চক্রে 

(খ) বৈদ্যুতিক মোটরে 

(গ) বৈদ্যুতিক জেনারেটরে 

(ঘ) ট্রান্সফর্মারে

উত্তর:- (গ) বৈদ্যুতিক জেনারেটরে

(১.১০) ফ্যরাডের সুত্র দুটি বিবৃত করে – 

(ক) চৌম্বকক্ষেত্র

(খ) তড়িৎক্ষেত্র

(গ) তড়িৎচৌম্বকীয় আবেশ 

(ঘ) তড়িৎচৌম্বকীয় ক্ষেত্র

উত্তর:- (গ) তড়িৎচৌম্বকীয় আবেশ

‘খ’ বিভাগ

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

(২.১) তড়িৎ প্রবাহের মাত্রীয় সংকেত কী?

উত্তরঃ l

(২.২) তড়িতের সুপরিবাহী এরূপ একটি অধাতুর নাম লেখো।

উত্তরঃ কার্বন

(২.৩) R মানের দুটি রোধ সমান্তরাল সমবায় যুক্ত। তুল্য রোধ কত?

উত্তরঃ R/2

(২.৪) 220v – 100w ও 220v – 50w বাল্‌ব দুটির মধ্যে কোন্‌টির রোধ বেশি?

উত্তরঃ 220v – 50w

(২.৫) কোন্‌ যন্ত্রের সাহায্যে তড়িৎ প্রবাহ পরিমাপ করা হয়?

উত্তরঃ অ্যানিমিটার

(২.৬) বাড়ির অয়্যারিং এর কাজ সাধারনত কোন্‌ ধাতুর তার ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ তামা

(২.৭) শূন্যস্থান পুরন করোঃ

  বৈদ্যুতিক বাল্‌বের ফিলামেন্ট ……… নির্মিত।

উত্তরঃ টাংস্টেন

(২.৮) শূন্যস্থান পুরন করোঃ  

  1 BOT =……w.h

উত্তরঃ 1000

(২.৯) সত্য না মিথ্যা কেখোঃ

  বার্লো চক্রের ঘূর্ণ্নের সময় তড়িৎশক্তি যান্ত্রিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

উত্তরঃ সত্য

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

 সমান্তরাল সমবায়ের ক্ষেত্রে তুল্য রোধের মান সমবায়ের প্রতিটি রোধের মানের চেয়ে ছোটো হয়।

উত্তরঃ সত্য

‘গ’ বিভাগ

৩. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

প্রশ্নঃ তড়িৎচালক বলের একক এর নাম কি উল্লেখ কর?

উত্তরঃ তড়িৎচালক বলের একক হল ভোল্ট।

প্রশ্নঃ ফিউজ তারের বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো?

উত্তরঃ ফিউজ তারের বৈশিষ্ট্য হলো রোধাঙ্ক বেশি এবং গলনাঙ্ক কম হয়ে থাকে।

প্রশ্নঃ তড়িৎ পরিবাহিতার একক কি?

উত্তরঃ সিমেন্স।

প্রশ্নঃ তড়িদাধানের একক এর নামটি উল্লেখ করো?

উত্তরঃ তড়িৎ আধানের একক হল কুলম্ব।

প্রশ্নঃ একটি অধাতু পরিবাহীর উদাহরণ দাও?

উত্তরঃ গ্রানাইট যা অধাতব পদার্থ হলেও তড়িৎ পরিবহনে সুপরিবাহী।

প্রশ্নঃ নাইক্রোম কোন কোন ধাতুর সংমিশ্রণে গঠিত?

উত্তরঃ নাইক্রোম আয়রন ক্রোমিয়াম এবং নিকেল এর সংমিশ্রণে গঠিত সংকর ধাতু।

প্রশ্নঃ একটি ধাতুর নাম উল্লেখ করো যা বেশি সুপরিবাহী?

উত্তরঃ বেশি সুপরিবাহী ধাতুটির নাম হলো রুপো।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম সাধারণত কোন প্রকৃতির পরিবাহী পদার্থ দ্বারা তৈরি হয়ে থাকে?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম সাধারণত অর্ধপরিবাহী পদার্থ দ্বারা তৈরী হয়ে থাকে।

প্রশ্নঃ পরিবাহিতা বলতে কী বোঝো?

উত্তরঃ পরিবাহিতা হল রোধের অনোন্যক রাশি।

প্রশ্নঃ একটি উদাহরণ দাও যা রাসায়নিক শক্তি তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করে থাকে?

উত্তরঃ তড়িৎ কোষে রাসায়নিক শক্তি তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

প্রশ্নঃ পৃথিবীর বিভব উল্লেখ কর?

উত্তরঃ পৃথিবীর বিভব হল 0।

প্রশ্নঃ আর্থিং তারের রং উল্লেখ করো?

উত্তরঃ আর্থিং তারের রং সবুজ বা হলুদ হয়ে থাকে।

প্রশ্নঃ 1KW =কত ওয়াট হবে উল্লেখ কর?

উত্তরঃ 1000W

প্রশ্নঃ তড়িৎ এর শ্রেণীবিভাগ কর?

উত্তরঃ তড়িৎ হল দুই প্রকারের। যথা – স্থির তড়িৎ ও চল তড়িৎ।

প্রশ্নঃ 1 হর্সপাওয়ার = কত ওয়াট?

উত্তরঃ 746 ওয়াট।

প্রশ্নঃ 1MW = কত ওয়াট হবে উল্লেখ কর?

উত্তরঃ 1000000W

প্রশ্নঃ রোধের ব্যবহারিক একক উল্লেখ কর?

উত্তরঃ রোধের ব্যবহারিক একক হল ওহম।

প্রশ্নঃ তড়িৎ ক্ষমতা কাকে বলে?

উত্তরঃ তড়িৎ ক্ষমতা হলো বৈদ্যুতিক কার্য করার হার।

প্রশ্নঃ বার্লোর চক্রে কোন তরল ব্যবহার করা হয়েছিল?

উত্তরঃ বার্লোর চক্রে পারদ ব্যবহার করা হয়েছিল।

প্রশ্নঃ তড়িৎ প্রবাহ মাত্রার ব্যবহারিক একক উল্লেখ করো?

উত্তরঃ তড়িৎ প্রবাহ মাত্রার ব্যবহারিক একক হল অ্যাম্পিয়ার।

প্রশ্নঃ তাপীয় ফল এর ব্যবহারিক প্রয়োগ হিসেবে তড়িৎ প্রবাহের ক্ষেত্রে কি ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ ফিউজ ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

প্রশ্নঃ 1WH= কত জুল হবে উল্লেখ করো?

উত্তরঃ 3600 জুল

প্রশ্নঃ আধানের ব্যবহারিক একক উল্লেখ করো?

উত্তরঃ আধানের ব্যবহারিক একক হল কুলম্ব।

প্রশ্নঃ এমসিবি/MCB এর সম্পূর্ণ নাম উল্লেখ কর?

উত্তরঃ এমসিবি এর পূর্ণ নাম হল Miniature Circuit Breaker।

প্রশ্নঃ কোন সূত্র শক্তির সংরক্ষণ সূত্র হিসেবে বিবেচিত?

উত্তরঃ ওহমের সূত্র শক্তি সংরক্ষণ সূত্র হিসেবে বিবেচিত।

প্রশ্নঃ তড়িৎচালক বলের ব্যবহারিক একক উল্লেখ করো?

উত্তরঃ তড়িৎচালক বলের ব্যবহারিক একক হল ভোল্ট।

প্রশ্নঃ কোন যন্ত্রের সাহায্যে যান্ত্রিক শক্তিকে আমরা তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করে থাকি অথবা কোন যন্ত্রের সাহায্যে যান্ত্রিক শক্তি থেকে তড়িৎ শক্তি উৎপন্ন করা হয়?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক জেনারেটর এ যান্ত্রিক শক্তি কোন শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

প্রশ্নঃ তড়িৎ বিভব কি রাশি?

উত্তরঃ তড়িৎ বিভব হল স্কেলার রাশি।

প্রশ্নঃ কোন যন্ত্রে তড়িৎ শক্তি ব্যবহার করে যান্ত্রিক শক্তি হিসেবে কাজ করে?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক মোটরে তড়িৎ শক্তি ব্যবহার করে যান্ত্রিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক বাল্বের ফিলামেন্ট কি দিয়ে তৈরি হয়?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক বাল্বের ফিলামেন্ট টাংস্টেন দিয়ে তৈরি হয়।

প্রশ্নঃ তড়িৎ শক্তির এস আই একক টির নাম উল্লেখ করো?

উত্তরঃ তড়িৎ শক্তির এস আই একক হল জুল।

প্রশ্নঃ ফিউজ তারের রোধাঙ্ক কম না বেশি?

উত্তরঃ কম হয়।

প্রশ্নঃ রোধাঙ্ক এর এস আই একক টির নাম কি?

উত্তরঃ ওহম মিটার।

প্রশ্নঃ নাইক্রোম কোন কোন ধাতু দিয়ে গঠিত হয়ে থাকে?

উত্তরঃ নিকেল ক্রোমিয়াম এবং লোহার সংমিশ্রণে গঠিত।

প্রশ্নঃ প্রবাহমাত্রা পরিমাপ করা হয় কোন যন্ত্রের সাহায্যে?

উত্তরঃ অ্যামিটার এর সাহায্যে প্রবাহ মাত্রা পরিমাপ করা হয়।

প্রশ্নঃ এসি এর সুবিধা ডিসি এর তুলনায় কম না বেশি?

উত্তরঃ বেশি সুবিধা।

প্রশ্নঃ ফিউজ তার কোন ধাতু দিয়ে তৈরি করা হয়ে থাকে?

উত্তরঃ ফিউজ তার টিন ও সীসার সংকর ধাতু দিয়ে তৈরি করা হয়।

প্রশ্নঃ তাপমাত্রা হ্রাস করলে ধাতুর রোধাঙ্ক এর কি পরিবর্তন আসে?

উত্তরঃ হ্রাস পায়।

প্রশ্নঃ ফিউজ তারে টিন ও সীসার পরিমাণ কত থাকে?

উত্তরঃ ফিউজ তারে টিন থাকে 25 শতাংশ এবং সীসা থাকে 75 শতাংশ।

প্রশ্নঃ শক এর হাত থেকে বাঁচার জন্য বৈদ্যুতিক যন্ত্রের হাতলে কি পদার্থ ব্যবহার করা হয়ে থাকে?

উত্তরঃ অন্তরক পদার্থ ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

প্রশ্নঃ তড়িৎ পরিবাহীর সময় ও রোধ স্থির রেখে যদি প্রবাহমাত্রা দ্বিগুণ করা হয় তাহলে তাপের কিরূপ পরিবর্তন হবে?

উত্তরঃ তাপ 4 গুণ বৃদ্ধি পাবে।

প্রশ্নঃ ডিসি এর কম্পাঙ্ক কত?

উত্তরঃ ডিসি এর কম্পাঙ্ক 0।

প্রশ্নঃ তামা রূপো লোহা সীসা এগুলির মধ্যে কোন ধাতুর রোধাঙ্ক  কম?

উত্তরঃ এগুলির মধ্যে রুপোর রোধাঙ্ক  কম।

প্রশ্নঃ কোন যন্ত্রের সাহায্যে কোষের তড়িৎচালক বলের মান মাপা হয়ে থাকে?

উত্তরঃ পোটেনসিওমিটার এর সাহায্যে মাপা হয়।

প্রশ্নঃ তাপমাত্রা বাড়ালে ধাতুর রোধের পরিবর্তন কেমন হয়?

উত্তরঃ ধাতুর রোধ তাপমাত্রা বাড়ালে বৃদ্ধি পায়।

প্রশ্নঃ একটি ধাতব পরিবাহীর উদাহরণ দাও যা তরল?

উত্তরঃ একটি তরল ধাতব পরিবাহী পারদ।

প্রশ্নঃ তাপমাত্রা বাড়ালে অর্ধপরিবাহীর রোধাঙ্কের কেমন পরিবর্তন হয়?

উত্তরঃ তাপমাত্রা বাড়ালে অর্ধপরিবাহী রোধাঙ্কের হ্রাস পায়।

প্রশ্নঃ এস আই পদ্ধতিতে রোধের একক কি?

উত্তরঃ ওহম।

প্রশ্নঃ কোন প্রকারের তড়িৎ শক্তিতে বার্লোচক্র কাজ করে থাকে?

উত্তরঃ কেবলমাত্র DC তে কাজ করে থাকে।

প্রশ্নঃ তড়িৎ প্রবাহমাত্রা কোন শ্রেণীর রাশি?

উত্তরঃ তড়িৎ প্রবাহ মাত্রা হল স্কেলার রাশি।

প্রশ্নঃ সাধারণত কোন বাল্বটি বেশি পরিমাণে বিদ্যুৎশক্তি সাশ্রয় করে থাকে?

উত্তরঃ LED বাল্ব বেশি পরিমাণে বিদ্যুৎশক্তি সাশ্রয় করে থাকে।

প্রশ্নঃ তড়িৎ বিভব কোন শ্রেণীর রাশি?

উত্তরঃ তড়িৎ বিভব হল স্কেলার রাশি।

প্রশ্নঃ হিটারের কুন্ডলীতে কোন ধাতুটি ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ নাইক্রোম ধাতুর ব্যবহার করা হয়।

প্রশ্নঃ তড়িৎ কোষে কিরূপ শক্তির পরিবর্তন হয়ে থাকে?

উত্তরঃ তড়িৎ কোষে রাসায়নিক শক্তি তড়িৎ শক্তিতে পরিবর্তিত বা রূপান্তরিত হয়।

প্রশ্নঃ কিসের সাহায্যে নিম্নচাপ বিশিষ্ট ac তড়িৎ প্রবাহকে উচ্চচাপ বিশিষ্ট ac তে রূপান্তর করা যায়?

উত্তরঃ স্টেপ আপ ট্রান্সফর্মার।

প্রশ্নঃ একটি গৌণ কোষ এর উদাহরণ দাও?

উত্তরঃ একটি গৌণ কোষ হলো লেড এসিড সঞ্চয়ক কোষ।

প্রশ্নঃ গৌণ কোষকে কতবার ব্যবহার করা যায়?

উত্তরঃ গৌণ কোষ কে বারবার ব্যবহার করা যায়।

প্রশ্নঃ সাধারণত কিসের পরিবর্তে এমসিবি/MCB ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ ফিউজ এর পরিবর্তে এমসিবি/MCB ব্যবহার করা হয়।

প্রশ্নঃ তড়িৎ ক্ষমতার ব্যবহারিক একক কি?

উত্তরঃ তড়িৎ ক্ষমতার ব্যবহারিক একক হল হর্সপাওয়ার।

প্রশ্নঃ ভারতের একটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের নাম উল্লেখ করো?

উত্তরঃ ভারতের একটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প হল ভাকরা নাঙ্গাল প্রকল্প।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক বাল্বের ভিতর বায়ু 0 না পূর্ণ থাকে?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক বাল্বের ভিতর বায়ুশূন্য থাকে।

প্রশ্নঃ নিউট্রাল তারের রং কি হয়?

উত্তরঃ নিউট্রাল তারের রং হয় কালো।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক বাল্বের ভিতর বায়ুশূন্য থাকার কারণ উল্লেখ করো?

উত্তরঃ বাল্বের ভিতর থাকা ফিলামেন্ট যাতে বায়ুর উপস্থিতিতে জারিত না হয় তাই বায়ুশূন্য থাকে।

প্রশ্নঃ আবিষ্ট প্রবাহের অভিমুখ জানা যায় কোন সূত্র থেকে?

উত্তরঃ লেঞ্জের সূত্র থেকে আমরা আবিষ্ট প্রবাহের অভিমুখ জানতে পারি।

প্রশ্নঃ দুটি অন্তরক পদার্থের নাম উল্লেখ করো?

উত্তরঃ দুটি অন্তরক পদার্থ হল কার্ড ও প্লাস্টিক।

প্রশ্নঃ কি দিয়ে জেনারেটর এর ব্রাশ তৈরি হয়?

উত্তরঃ কার্বন দিয়ে জেনারেটর এর ব্রাশ তৈরি হয়।

প্রশ্নঃ তড়িৎ ক্ষমতার এসআই পদ্ধতিতে এককটি কি?

উত্তরঃ ওয়াট।

প্রশ্নঃ লাইভ তারের রং উল্লেখ করো?

উত্তরঃ লাইভ তারের রং হয় লাল।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক শক্তির বাণিজ্যিক এককটি উল্লেখ করো?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক শক্তির বাণিজ্যিক একক হল Board of Trade Unit।

প্রশ্নঃ কিসে তে রাসায়নিক শক্তিকে তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করা হয়?

উত্তরঃ ব্যাটারিতে রাসায়নিক শক্তিকে তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করা হয়।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক ইস্ত্রি তে কিরূপ শক্তির রূপান্তর ঘটে থাকে?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক ইস্ত্রি তে তড়িৎ শক্তি তাপ শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

প্রশ্নঃ LED এর পূর্ণরূপ লেখ?

উত্তরঃ LED means light emitting diode.

প্রশ্নঃ কোন যন্ত্রের সাহায্যে বিভব প্রভেদ মাপা হয়?

উত্তরঃ বিভব প্রভেদ মাপা হয় ভোল্ট মিটার যন্ত্রের সাহায্যে।

প্রশ্নঃ CLF এর পূর্নরূপ লেখ?

উত্তরঃ Compact Fluorescent Lamp.

প্রশ্নঃ দুটি অর্ধপরিবাহী পদার্থের উদাহরণ দাও?

উত্তরঃ দুটি অর্ধপরিবাহী পদার্থ হল সিলিকন এবং জার্মেনিয়াম।

প্রশ্নঃ নিউট্রাল তারের বর্ণ কি রঙের হয়ে থাকে?

উত্তরঃ নিউট্রাল তারের বর্ণ হালকা নীল হয়ে থাকে।

‘ঘ’ বিভাগ

৪. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

প্রশ্নঃ ‘শর্ট সার্কিট’ বলতে কী বোঝো?

উত্তরঃ কোনো কারণে কোনো তড়িৎ বর্তনীর লাইন দুটির মধ্যে সরাসরি সংযোগ ঘটলে বর্তনীর রোধ প্রায় শূন্য হয়। একে শর্ট সার্কিট বলা হয়। শর্ট সার্কিট হলে বর্তনীতে প্রবাহমাত্রা খুব বেড়ে যায়। ফলে লাইনে প্রচুর তাপ উৎপন্ন হয়ে আগুন ধরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

প্রশ্নঃ পরিবর্তীপ্রবাহ কী? পরিবতী প্রবাহের ক্ষেত্রে প্রবাহমাত্রা সময়-লেখচিত্রটি কীরূপ?

উত্তরঃ যে তড়িৎ প্রবাহমাত্রা নির্দিষ্ট সময় অন্তর অভিমুখ পরিবর্তন করে এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পর্যায়ক্রমে মান পরিবর্তন করে তাকে পরিবর্তী প্রবাহ বলে।

প্রশ্নঃ ডিসি অপেক্ষায় এসি ব্যবহারের সুবিধা উল্লেখ করো?

উত্তরঃ এসির ক্ষেত্রে ট্রান্সফর্মার ব্যবহার করে এর বিবাহ মান বাড়ানো বা কমানো সম্ভব। ডিসি তুলনায় এসির উৎপাদন খরচ অনেক কম হয়। এসি বহুদূরে সম্প্রচার করা সম্ভব।

প্রশ্নঃ তড়িৎপ্রবাহের উপর চুম্বকের ক্রিয়া বলতে কী বোঝো?

উত্তরঃ তড়িৎপ্রবাহ যেমন চুম্বকের উপর ক্রিয়া করে চুম্বক মেরুকে বিক্ষিপ্ত করার সময় ওর ওপর একটি বল প্রয়োগ করে। এই কারণে পরিবাহী নিজ অবস্থান থেকে বিক্ষিপ্ত হয়। একেই তড়িৎপ্রবাহের উপর। চুম্বকের ক্রিয়া বলে।

প্রশ্নঃ দক্ষিণ হস্ত মুষ্টি সূত্রটি বিবৃত করো।

উত্তরঃ একটি তড়িৎবাহী তারকে ডান হাত দিয়ে যদি এমনভাবে মুষ্টিবদ্ধ করা হয় যাতে বুড়ো আঙুল তড়িৎপ্রবাহের অভিমুখ নির্দেশ করে তবে অন্য আগুলগুলির অগ্রভাগ উৎপন্ন চৌম্বকক্ষেত্রের বলরেখার অৰ্থাৎ চৌম্বকক্ষেত্রের অভিমুখ নির্দেশ করবে।

প্রশ্নঃ পজিটিভ এবং নেগেটিভ তড়িৎ কীভাবে উৎপন্ন হয়?

উত্তরঃ কোনো মৌলিক পদার্থের সুস্থির পরমাণুর মধ্যে ইলেকট্রন ও প্রোটনের সংখ্যা সমান। ইলেকট্রনগুলি নেগেটিভ বা ঋণাত্মক তড়িৎগ্রস্ত ও প্রোটনগুলি পজিটিভ বা ধনাত্মক তড়িৎগ্রস্ত কণা। ইলেকট্রনের হ্রাস-বৃদ্ধির দ্বারা কোনো পদার্থে তড়িৎ এর  প্রকৃতি নির্ধারিত হয়। যে পদার্থ থেকে ইলেকট্রন অপসারিত হবে সেটি ধনাত্মক বা  পজিটিভ তড়িৎগ্রস্ত এবং যে পদার্থটি ইলেকট্রনের আধিক্য ঘটবে সেটি ঋণাত্মক  বা নেগেটিভ তড়িৎগ্রস্ত হবে।

প্রশ্নঃ গৃহস্থালির বর্তনীতে আর্থিং ব্যবহার করার কারণ উল্লেখ করো?

উত্তরঃ গৃহস্থালির বর্তনীতে আর্থিং ব্যবহার করার কারণ হলো যাতে বিদ্যুৎ লাইনে শর্ট সার্কিট না হয়। এবং যদি হয়ে থাকে তাহলে অতিরিক্ত ইলেকট্রন কনা আর্থিং এর সাহায্যে মাটিতে চলে যাবে এবং গৃহস্থালীতে ব্যবহৃত বিভিন্ন যন্ত্রপাতি গুলি যাতে নষ্ট না হয়।

প্রশ্নঃ বৈদ্যুতিক মোটরের শক্তি কী কী উপায়ে বাড়ানো যায়?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক মোটরের শক্তি বাড়ানোর উপায় হল –

(১) আর্মেচারের মধ্যে তড়িৎপ্রবাহের মাত্রা বাড়িয়ে।

(২) আর্মেচারের তারের পাকসংখ্যা বাড়িয়ে।

(৩) ক্ষেত্র চুম্বকের চৌম্বকশক্তি বাড়িয়ে।

প্রশ্নঃ ‘একটি কোশের তড়িচালক বল 1.5 ভোল্ট’ – এর অর্থ কী?

উত্তরঃ কোনো কোশের তড়িচালক বল 1.5 ভোল্ট বলতে বোঝায় যে, কোশটির ধনাত্মক মেরু থেকে ঋণাত্মক মেরুতে 1 কুলম্ব তড়িদাধান নিয়ে যেতে 1.5 জুল কার্য করতে হয়।

প্রশ্নঃ ফিউজ তারের বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো?

উত্তরঃ ফিউজ তার নিম্ন গলনাঙ্ক এবং উচ্চ রোধাঙ্ক যুক্ত হয়ে থাকে। ফিউজ তার এমন এক সংকর ধাতু দিয়ে তৈরি হয় যা 25 শতাংশ টিন এবং 75% সীসা থাকে।

প্রশ্নঃ বার্লোরচন্দ্র পরিবর্তী প্রবাহে কাজ করে না কেন?

উত্তরঃ বার্লোরচক্র পরিবর্তী প্রবাহে (AC) কাজ করে না। কারণ বালোরচক্র তড়িৎপ্রবাহের উপর চুম্বকের ক্রিয়া’ এই নীতির উপর প্রতিষ্ঠিত। চুম্বকক্ষেত্রের অভিমুখ অপরিবর্তিত রেখে তড়িৎপ্রবাহের অভিমুখ বিপরীত দিকে হলে চক্রের ঘূর্ণনের অভিমুখ বিপরীত হবে। পরিববর্তী প্রবাহে (AC)তড়িৎ প্রবাহের অভিমুখ প্রতি মুহুর্তে পরিবর্তিত হয়। এক্ষেত্রে চক্রটি একবার একদিকে ও পরে বিপরীত দিকে ঘুরতে চেষ্টা করবে। ফলে চক্রের ঘূর্ণন হবে না। কেবলমাত্র সমপ্রবাহে (DC)-তে বালোরচক্র কাজ করবে।

প্রশ্নঃ লেঞ্জের সূত্র বিবৃত করো।

উত্তরঃ তড়িৎচুম্বকীয় আবেশের ক্ষেত্রে আবিষ্ট তড়িৎপ্রবাহের অভিমুখ এমন হয় যে, যে কারণে আবিষ্ট তড়িৎপ্রবাহের সৃষ্টি হয়, আবিষ্ট প্রবাহমাত্রা সর্বদা সেই কারণকে বাধা দেয়।

প্রশ্নঃ সমপ্ৰথচ্ছেদ বিশিষ্ট একটি লম্বা ও একটি ছোটো তামার তারের মধ্য দিয়ে একই সময় একই পরিমাণ তড়িৎ পাঠালে কোন তারটি বেশি উত্তপ্ত হবে ও কেন?

উত্তরঃ সমপ্রথচ্ছেদ বিশিষ্ট একটি লম্বা ও একটি ছোটো তামার তারের মধ্য দিয়ে একই সময় একই পরিমাণ তড়িৎ পাঠালে লম্বা তারটি বেশি উত্তপ্ত হবে।

    কারণ আমরা জানি, একই উপাদান ও একই বিশিষ্ট তারের রোধ ওর দৈর্ঘ্যের সমানুপাতিক। লম্বা তারটির রোধ ছোটো তারটির রোধ অপেক্ষা বেশি হয়। আবার জুলের সূত্রানুযায়ী, পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহমাত্রা ও তড়িৎপ্রবাহের সময় অপরিবর্তিত থাকলে, পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ রোধের সমানুপাতিক হয়। অর্থাৎ, পরিবাহীতে উৎপন্ন তাপ রোধের সমানুপাতিক হয়। অর্থাৎ, পরিবাহীর রোধ বেশি হলে ওতে উৎপন্ন তাপের পরিমাণ বেশি হবে। লম্বা তারটির রোধ বেশি হওয়ায় লম্বা তারটি বেশি উত্তপ্ত হবে।

প্রশ্নঃ থ্রি-পিন প্ল্যাগ কী? এটি কোন কাজে ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ যে প্ল্যাগে তিনটি পিনের ব্যবস্থা থাকে তাকে প্লি-পিন প্ল্যাগ বলে। ওপরের বড়ো ছিদ্রটি আর্থ কানেকশনের জন্য ডান দিকের ছিদ্রটি লাইভ তারের এবং বামদিকের ছিদ্রটি নিউট্রাল তারের কানেকশনের জন্য।

প্রশ্নঃ কোশের অভ্যন্তরীণ রোধ কোন কোন বিষয়ের উপর নির্ভর করে?

উত্তরঃ কোশের অভ্যন্তরীণ রোধ নিম্নলিখিত বিষয়গুলির উপর নির্ভর করে –

(১) তড়িদ্দারদ্বয়ের মধ্যবর্তী দূরত্বের উপরঃ তড়িদ্দারদ্বয়ের মধ্যবর্তী দূরত্ব বাড়ালে অভ্যন্তরীণ রোধ বৃদ্ধি পায়।

(২) সক্রিয় তরলের মধ্যে তড়িদ্দারদ্বয়ের নিমজ্জিত অংশের ক্ষেত্রফলের  উপরঃ নিমজ্জিত অংশের ক্ষেত্রফল বৃদ্ধি পেলে অভ্যন্তরীণ রোধ হ্রাস পায়।

(৩) কোশ মধ্যস্থ সক্রিয় তরলের প্রকৃতির উপরঃ সক্রিয় তরলের পরিবাহিতা বৃদ্ধি পেলে কোশের অভ্যন্তরীণ রোধের মান হ্রাস পায়।

প্রশ্নঃ অর্ধপরিবাহী পদার্থ কাদের বলা হয়?

উত্তরঃ অর্ধপরিবাহী পদার্থ হল সেই সমস্ত পদার্থ যে গুলির তড়িৎ পরিবহন ক্ষমতা সুপরিবাহী পদার্থের তুলনায় কম এবং অন্তরক পদার্থের তুলনায় বেশি তাদের অর্ধপরিবাহী পদার্থ বলা হয়।

প্রশ্নঃ ইলেকট্রিক হিটারে নাইক্রোম তার ব্যবহার করা হয় কেন?

উত্তরঃ ইলেকট্রিক হিটারে নাইক্রোম তার ব্যবহারের কারণ হল –

(১) নাইক্রোম হল নিকেল (Ni), ক্রোমিয়াম (Cr) ও লোহার (Fe) সংকর ধাতু। এর গলনাঙ্ক রোধাঙ্ক খুব বেশি হয়। রোধাঙ্ক বেশি হওয়ায় রোধও বেশি। আবার রোধ বেশি হওয়ায় জুলের সূত্রানুযায়ী, তড়িৎপ্রবাহের ফলে তারটিতে বেশি তাপ উৎপন্ন হয়। আর গলনাঙ্ক বেশি হওয়ায় উচ্চ তাপমাত্রাতেও তারটি গলে যায় না।

(২) উচ্চ উষ্ণতাতেও নাইক্রোম বায়ুর সংস্পর্শে এলে বায়ুর অক্সিজেন দ্বারা জারিত হয় না।

প্রশ্নঃ আর্থ তারের বৈশিষ্ট্য কী?

উত্তরঃ তারের রোধ কম হওয়া উচিত। কারণ তারের মধ্য দিয়ে নির্দিষ্ট সীমার বেশি তড়িৎপ্রবাহ হলে সার্কিটের ফিউজ তারটি পুড়ে গিয়ে লাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে  দেয়।

প্রশ্নঃ ওহমের সূত্রটি লেখো ও ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ উষ্ণতা, উপাদান এবং অন্যান্য ভৌত অবথা অপরিবর্তিত থাকলে, কোনো পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহমাত্রা ওই পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভবপার্থক্যের সমানুপাতিক হবে।

ব্যাখ্যাঃ মনে করি, AB একটি পরিবাহী। পরিবাহীর A প্রান্তের বিভব VA এবং B প্রান্তের বিভব VB মনে করি,

VA > VB ।  

সুতরাং, পরিবাহীতে A প্রান্ত থেকে B প্রান্তের দিকে তড়িৎপ্রবাহ হবে, তড়িৎ প্রবাহমাত্রা  হলে, ওহমের সূত্রাণুযায়ী, (উষ্ণতা উপাদান ও অন্যান্য ভৌত অবস্থা অপরিবর্তিত থাকে)।

প্রশ্নঃ থ্রি-পিন প্লাগ টপের সঙ্গে লাগানো তার তিনটির অন্তরক আবরণের রং কী কী?

উত্তরঃ বৈদ্যুতিক লাইনে তিনটি অন্তরিত তামার তার ব্যবহৃত হয়। তারগুলিকে চেনার জন্য তারের আবরণের তিনটি আলাদা রং নির্দিষ্ট করা হয়। একে তারের বর্ণ সংকেত বলে। নতুন আন্তর্জাতিক নিয়মানুসারে লাইভ তারকে বাদামি, নিউট্রাল তারকে হালকা নীল ও আর্থ তারকে সবুজ বা হলুদ বর্ণের করা হয়

================================

সঠিক উত্তর নির্বাচন করো। (MCQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 1]

1। সুপরিবাহীর রোধাঙ্ক উষ্ণতা বৃদ্ধিতে –
a) অপরিবর্তিত থাকে b) হ্রাস পায় c) বৃদ্ধি পায় d) শূন্য হয়ে যায়।

উত্তর-সুপরিবাহীর রোধাঙ্ক উষ্ণতা বৃদ্ধিতে c) বৃদ্ধি পায়।

2। ফিউজ তার কোন্‌ ধাতুর তৈরি?
a) টিন b) সিসা c) টিন ও সিসার সংকর ধাতু d) তামা ও অ্যালুমিনিয়ামের সংকর ধাতু।

উত্তর- ফিউজ তার c) টিন ও সিসার সংকর ধাতুর তৈরি।

3। বৈদ্যুতিক বাতির ফিলামেন্ট তৈরি করা হয় –
a) টাংস্টেন b) অ্যালুমিনিয়াম c) কপার d) নাইক্রম দিয়ে।

উত্তর- বৈদ্যুতিক বাতির ফিলামেন্ট তৈরি করা হয় a) টাংস্টেন দিয়ে।

4। তড়িৎপ্রবাহের তাপীয় ফলের একটি প্রয়োগ হল –
a) রেডিয়ো b) ফিউজ c) টিভি d) প্রেসার কুকার।

উত্তর- তড়িৎপ্রবাহের তাপীয় ফলের একটি প্রয়োগ হল – b) ফিউজ।

5। তড়িৎশক্তির খরচের হিসেবে কোন্‌টি বেশি তড়িৎ খরচ সাশ্রয়কারী?
a) ভাস্বর বাতি b) প্রতিপ্রভ বাতি c) LED d) CFL

উত্তর-তড়িৎশক্তির খরচের হিসেবে c) LED বেশি তড়িৎ খরচ সাশ্রয়কারী।

 

6। R রোধের মধ্য দিয়ে t সময় ধরে I প্রবাহ চললে যে পরিমাণ তড়িৎশক্তি খরচ হবে, তা হল-
a) IR2t b) I2Rt c) IRt d) I2R2t

উত্তর-R রোধের মধ্য দিয়ে t সময় ধরে I প্রবাহ চললে যে পরিমাণ তড়িৎশক্তি খরচ হবে, তা হল- a) IR2t .

7। ফ্লেমিং- এর বামহস্ত নিয়মকে বলা হয়-
a) ডায়নামোর নিয়ম b) মোটরের নিয়ম c) আবেশের নিয়ম d) ভ্রান্ত নিয়ম।

উত্তর- ফ্লেমিং- এর বামহস্ত নিয়মকে বলা হয় – b) মোটরের নিয়ম।

8। ওরস্টেড- এর নীতিকে কাজে লাগিয়ে তৈরি করা হয়েছে-
a) হিটার b) বাল্ব c) বৈদ্যুতিক মোটর d) ইনভার্টার।

উত্তর- ওরস্টেড- এর নীতিকে কাজে লাগিয়ে তৈরি করা হয়েছে – c) বৈদ্যুতিক মোটর।

9। লেঞ্জের সূত্রটি প্রদত্ত কোন্‌ সংরক্ষণ সূত্র থেকে পাওয়া যায়?
a) ভরের সংরক্ষণ সূত্র b) আধানের সংরক্ষণ সূত্র c) শক্তির সংরক্ষণ সূত্র d) ভর ও শক্তির সংরক্ষণ সূত্র।

উত্তর-লেঞ্জের সূত্রটি c) শক্তির সংরক্ষণ সূত্র থেকে পাওয়া যায়।

10। ফ্যারাডের সূত্র দুটি বিবৃত করে-
a) চৌম্বকক্ষেত্র b) তড়িৎক্ষেত্র c) তড়িৎচৌম্বক ক্ষেত্র d) তড়িৎচুম্বকীয় আবেশ।

উত্তর- ফ্যারাডের সূত্র দুটি বিবৃত করে – d) তড়িৎচুম্বকীয় আবেশ।

একটি বাক্যে উত্তর দাও। (VSAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 1]

1। ডায়নামোতে কোন্‌ ধরনের শক্তি তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত হয়?
উত্তর-ডায়নামোতে যান্ত্রিক শক্তি তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

2। তড়িৎক্ষমতার SI একক কী?
উত্তর-তড়িৎক্ষমতার SI একক হল ওয়াট।

3। BOT এককের পুরো নাম লেখো।
উত্তর- BOT এককের পুরো নাম Board of Trade unit.

4। কোন ব্যবহারিক যন্ত্রে ফ্লেমিং-এর বামহস্ত নিয়ম প্রযুক্ত হয়?
উত্তর- বৈদুতিক মোটরে ফ্লেমিং-এর বামহস্ত নিয়ম প্রযুক্ত হয়।

5। গৃহস্থলীতে ব্যবহৃত বৈদ্যুতিক যন্ত্রগুলি বর্তনীতে কোন সমবায়ে যুক্ত থাকে?
উত্তর- গৃহস্থলীতে ব্যবহৃত বৈদ্যুতিক যন্ত্রগুলি বর্তনীতে সমান্তরাল সমবায়ে যুক্ত থাকে।

আরো পড়ো → ভেদ অধ্যায়ের গাণিতিক উদাহরণ

সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন (SAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 2/3]

1। বৈদ্যুতিক হিটারে ব্যবহৃত নাইক্রোম তারের প্রকৃতি কীরূপ?
উত্তর- বৈদ্যুতিক হিটারে ব্যবহৃত নাইক্রোম তার উচ্চ গলনাঙ্ক ও উচ্চ রোধাঙ্ক বিশিষ্ট হয়। উচ্চ রোধাঙ্ক হওয়ায় বেশি পরিমাণ তাপ উৎপন্ন হয়। এবং উচ্চ গলনাঙ্ক হওয়ার কারণে অধিক তাপে নাইক্রোম তার গলে যায় না।

2। শর্ট সার্কিট কী?
উত্তর- কোনো কারণে কোনো তড়িৎ বর্তনীর লাইন দুটির মধ্যে সরাসরি সংযোগ ঘটলে বর্তনীর রোধ প্রায় শূন্য হয়। একেই বলা হয় শর্ট সার্কিট (Short circuit)। শর্ট সার্কিট হলে বর্তনীতে প্রবাহমাত্রা খুব বেড়ে যায়। ফলে লাইনে প্রচুর তাপ উৎপন্ন হয়ে আগুন ধরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

3। ভেজা হাতে সুইচ স্পর্শ করা নিরাপদ নয় কেন?
উত্তর-সাধারণ জল তড়িৎ-এর সুপরিবাহী, এছাড়া আমাদের দেহও তড়িৎ-এর সুপরিবাহী। এই কারণে সুইচে যদি কারেন্ট লিকেজ থাকে ভেজা হাতের মাধ্যমে আমদের শরীরে চলে আসে এবং শক লাগবার আশঙ্কা থাকে। তাই ভেজা হাতে সুইচ স্পর্শ করা নিরাপদ।

4। বিভব পার্থক্য কী?
উত্তর- দুটি সমান বা বিপরীত জাতীয় তড়িৎগ্রস্ত বস্তুর মধ্যে বিভবের যে পার্থক্য হয়, তাকে ওই বস্তুদ্বয়ের বিভবপার্থক্য বলে।

5। পরিবর্তী তড়িৎপ্রবাহ বলতে কি বোঝায়?
উত্তর- যে তড়িৎপ্রবাহমাত্রা নির্দিষ্ট সময় অন্তর অভিমুখ পরিবর্তন করে এবং সময়ের সঙ্গে পর্যায়ক্রমিকভাবে মান পরিবর্তন করে তাকেই পরিবর্তী প্রবাহ বলে।

6। আর্থিং কী?
উত্তর- ব্যবহৃত যন্ত্রের ধাতব ও আচ্ছাদন তড়িৎ গ্রস্ত হয়ে পড়লে বিপদের আশঙ্কা থাকে অর্থাৎ ব্যবহারকারী ভূমিতে দাঁড়ানো অবস্থায় ওই যন্ত্র স্পর্শ করলে তার শক লাগার সম্ভাবনা থাকে। এই বিপদ দূর করার জন্য আর্থিং ব্যবহার করা হয়।

7। লাইভ, নিউট্রাল এবং আর্থিং তারের আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুসারে বর্ণ লেখো।
উত্তর- আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুসারে, লাইভ তারের বর্ণ – বাদামি
নিউট্রাল তারের বর্ণ – হালকা নীল
আর্থ তারের বর্ণ – সবুজ বা হলুদ।

8। একটি স্কুলে 10টি 40 W –এর পাখা প্রতিদিন 5 hr চলে এবং 5টি 60 W –এর বাতি গড়ে 3 hr জ্বলে। প্রতি ইউনিট 5 টাকা হলে, মাসিক খরচ কত হবে?
উত্তর- মোট তড়িৎশক্তি ব্যয় = [(10 x 40) x 5 x 30 + (5 x 60) x 3 x 30] = 60000 + 27000
= 87000 = 87KWh
এক মাসে কত খরচ হবে = 87 x 5 = 435 টাকা

9। পরিবর্তী প্রবাহ (AC) ও সম প্রবাহ (DC) –এর মধ্যে পার্থক্য লেখো।
উত্তর-

10। একটি রোধ অপর একটি রোধের তিনগুন। রোধ দুটিকে শ্রেণি সমবায়ে যুক্ত করলে তুল্যরোধ হয় 12 Ω । রোধ দুটির মান নির্ণয় করো।
সমাধান, ধরি, একটি রোধ R অপরটি 3R।
রোধ দুটিকে শ্রেণি সমবায়ে যুক্ত করলে তুল্যরোধ = (R + 3R) = 4R
∴ 4R=12
∴ R = 3
উত্তর- একটি রোধ 3Ω অপরটি (3 x 3) = 9Ω

©kamaleshforeducation.in(2023)

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *