পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র

পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) 

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography

 MCQ | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়)  

  1. কোন্ আবহবিজ্ঞানী পৃথিবীর জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করেন— 

(A) ডেভিস

(B) গিলবার্ট

(C) কোপেন

(D) পাওয়েল

Ans: (C) কোপেন

  1. কোন জলবায়ু অঞ্চলে ঋতুপরিবর্তন লক্ষ করা যায় না –

(A) নিরক্ষীয় 

(B) ক্রান্তীয় মৌসুমি

(C) ভূমধ্যসাগরীয়

(D) চিনদেশীয় 

Ans: (A) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে শীতকাল বর্ষাকাল—

(A) ক্রান্তীয় মৌসুমি

(B) উষ্ণ মরু

(C) ভূমধ্যসাগরীয়

(D) নিরক্ষীয়

Ans: (C) ভূমধ্যসাগরীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বার্ষিক উষ্ণতার প্রসার সবচেয়ে কম – 

(A) তুন্দ্রা

(B) ক্রান্তীয় মরু

(C) স্টেপ

(D) নিরক্ষীয় 

Ans: (D) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বার্ষিক বৃষ্টি খুব কম – 

(A) নিরক্ষীয়

(B) ক্রান্তীয় মৌসুমি

(C) উষ্ণ মরু

(D) ভূমধ্যসাগরীয়

Ans: (C) উষ্ণ মরু

  1. কোন জলবায়ু অঞ্চলে দুপুরে সর্বোচ্চ উষ্ণতা ৫০ ° C পর্যন্ত হয়— 

(A) নিরক্ষীয়

(B) তুন্দ্রা 

(C) পশ্চিম ইউরোপীয়

(D) উষ্ণ মরু 

Ans: (D) উষ্ণ মরু

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বছরের অর্ধেকের বেশি সময় বরফ । ঢাকা থাকে—

(A) ক্রান্তীয় মরু

(B) তুন্দ্রা

(C) নিরক্ষীয়

(D) ভূমধ্যসাগরীয়

Ans: (B) তুন্দ্রা

  1. কোন্ দেশটির জলবায়ু নিরক্ষীয় জলবায়ু প্রকৃতির— 

(A) মালয়েশিয়া

(B) রাশিয়া

(C) চিন

(D) ভারত

Ans: (A) মালয়েশিয়া

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলটি সমুদ্র উপকূলে অবস্থিত –

(A) স্টেপ জলবায়ু

(B) ক্রান্তীয় মরু

(C) ভূমধ্যসাগরীয়

(D) মহাদেশীয়

Ans: (B) ক্রান্তীয় মরু

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে সারাবছর বৃষ্টি হয় – 

(A) নিরক্ষীয়

(B) তুন্দ্রা

(C) ক্রান্তীয় মরু

(D) মহাদেশীয়

Ans: (D) মহাদেশীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের জলবায়ু চরম প্রকৃতির— 

(A) নিরক্ষীয়

(B) পশ্চিম ইউরোপীয়

(C) মহাদেশীয়

(D) ভূমধ্যসাগরীয়

Ans: (C) মহাদেশীয়

  1. কোন্‌টি ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য –

(A) সারাবছর বৃষ্টি

(B) চরম জলবায়ু

(C) শুষ্ক গ্রীষ্মকাল ও আর্দ্র শীতকাল

(D) প্রবল তুষারপাত

Ans: (C) শুষ্ক গ্রীষ্মকাল ও আর্দ্র শীতকাল

  1. দক্ষিণ গোলার্ধের যে – কোনো স্থানের উষ্ণতা রেখাচিত্রটি কেমন হয় –

(A) মধ্যভাগ অবতল

(B) মধ্যভাগ উত্তল

(C) সরল

(D) কোনোটিই নয়

Ans: (A) মধ্যভাগ অবতল

  1. কোন্ বায়ুর প্রভাবে ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে শীতকালে বৃষ্টি হয়— 

(A) আয়ন বায়ু

(B) মেরু বায়ু

(C) পশ্চিমা বায়ু

(D) মৌসুমি বায়ু

Ans: (C) পশ্চিমা বায়ু

  1. সাইবেরিয়া কোন্ জলবায়ুর অন্তর্গত –

(A) ক্রান্তীয় মৌসুমি

(B) নিরক্ষীয়

(C) ভূমধ্যসাগরীয়

(D) তুন্দ্রা

Ans: (B) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের বৃষ্টিপাত লেখচিত্রে দুটি সুস্পষ্ট শীর্ষবিন্দু দেখা যায়—

(A) মৌসুমি 

(B) ভূমধ্যসাগরীয়

(C) তুন্দ্রা

(D) নিরক্ষীয়

Ans: (D) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ুর বৃষ্টিপাত লেখচিত্রে বেশ কয়েকটি মাসে স্তম্ভ থাকে না –

(A) উষ্ণ মরু 

(B) ভূমধ্যসাগরীয়

(C) মৌসুমি

(D) নিরক্ষীয়

Ans: (A) উষ্ণ মরু 

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বার্ষিক উষ্ণতার গড় সারাবছরে প্রায় একই থাকে –

(A) নিরক্ষীয়

(B) মৌসুমি

(C) মরু

(D) তুন্দ্রা

Ans: (A) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে কালবৈশাখী দেখা যায়—

(A) ক্রান্তীয় মরু

(B) মৌসুমি

(C) ভূমধ্যসাগরীয়

(D) তুন্দ্রা

Ans: (B) মৌসুমি

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে উষ্ণতা রেখাটি প্রায় সরল হয়— 

(A) তুন্দ্রা 

(B) ভূমধ্যসাগরীয়

(C) পশ্চিম ইউরোপীয়

(D) নিরক্ষীয় 

অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Prithibir Mukho Jolobayu Anchal Question and Answer : 

  1. কোন্ জলবায়ুতে উষ্ণ আর্দ্র ঋতু পরিবর্তনহীন পরিলক্ষিত হয় ?

Ans: নিরক্ষীয় জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের লেখচিত্র থেকে গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব হয় না ?

Ans: নিরক্ষীয় জলবায়ু ।

  1. ‘ 4 O’clock shower region ‘ কোন্ জলবায়ুকে বলা হয় ?

Ans: নিরক্ষীয় জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ুতে দুপুরে উষ্ণতা ৫০ ° C পর্যন্ত ওঠে ।

Ans: ক্রান্তীয় মরু জলবায়ু ।

  1. উষ্ণতা বৃষ্টিপাত লেখচিত্রে বৃষ্টিপাতকে কোন্ মানচিত্রে দেখানো হয় ?

Ans: জলবায়ু উত্তর স্তম্ভের আকারে ।

  1. লেখচিত্রে রেখার আকারে কোন্ জলবায়ুর উপাদানকে দেখানো হয় ?

Ans: উষ্ণতা । 

  1. কোন্ জলবায়ুতে গ্রীষ্মকাল শুষ্ক ও শীতকাল আর্দ্র ?

Ans: ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ুকে উষ্ণ সমুদ্রস্রোত সর্বাধিক প্রভাবিত করে ?

Ans: পশ্চিম উপকূলীয় সামুদ্রিক জলবায়ু ।

সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Prithibir Mukho Jolobayu Anchal Question and Answer : 

  1. জলবায়ু অঞ্চল কাকে বলে ?

Ans: নির্দিষ্ট অঞ্চল যেখানে জলবায়ুর উপাদানগুলির কার্যকারিতা প্রায় এক এবং অঞ্চলটিতে একই ধরনের জলবায়ু বিরাজ করে তা হল জলবায়ু অঞ্চল ।

  1. কোন্ কোন্ আবহবিজ্ঞানী জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করেন ?

Ans: কোপেন , থর্নওয়েট , ট্রেওয়ার্থা প্রভৃতি । কোন্ কোন্ বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করা হয় ? | উত্তর ( ১ ) মোট বিকিরণ , ( ২ ) উষ্ণতা , ( ৩ ) বৃষ্টিপাত , ( ৪ ) স্বাভাবিক উদ্ভিদ , ( ৫ ) মৃত্তিকা — এই পাঁচটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করা হয় ।

  1. আমেরিকার দুটি দেশের নাম লেখো যেখানে নিরক্ষীয় জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় ?

Ans: ( ১ ) ব্রাজিলের মধ্যভাগের সেলভা অরণ্য , ( ২ ) ইকুয়েডর । প্রশ্ন এশিয়া মহাদেশের কোন কোন দেশে নিরক্ষীয় জলবায়ু দেখা যায় ? উত্তর ( ১ ) মালয়েশিয়া , ( ২ ) ইন্দোনেশিয়া , ( ৩ ) সিঙ্গাপুর । নিরক্ষীয় জলবায়ুতে গড় উষ্ণতা সারাবছর বেশি C | উত্তর ( ১ ) সারাবছর নিরক্ষীয় অঞ্চলে সূর্যকিরণ লম্বভাবে পড়ে এবং ( ২ ) দিন ও রাতের দৈর্ঘ্য সারাবছর সমান । এই দুটি কারণে গড় উষ্ণতা এখানে সারাবছর বেশি ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলে প্রবল বৃষ্টি হয় কেন ?

Ans: ( ১ ) নিরক্ষীয় অঞ্চলে প্রায় সারাবছর সূর্যরশ্মি লম্বভাবে পড়ে এবং ( ২ ) সমুদ্রের বিস্তার খুব বেশি । এই দুটি কারণে প্রায় প্রতিদিন প্রবল উষ্ণতায় জল বাষ্পীভূত হয়ে অপরাহ্নে বৃষ্টি ঘটায় ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Ans: ( ১ ) সারাবছর উষ্ণ – আর্দ্র জলবায়ু , ( ২ ) জলবায়ুতে ঋতু পরিবর্তন ঘটে না । নিরক্ষীয় অঞ্চলে কোন্ দুটি মাসে বৃষ্টি বেশি ? উত্তর ( ১ ) মার্চ ও ( ২ ) সেপ্টেম্বরে — এই দুটি মাসে বৃষ্টির পরিমাণ বাকি মাসের তুলনায় বেশি ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর উষ্ণতার দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Ans: ( ১ ) সারাবছর গড় উষ্ণতা বেশি ( ২৭ ° C ) এবং প্রতি মাসেই উষ্ণতা একইপ্রকার । ( ২ ) বার্ষিক গড় উষ্ণতার প্রসর খুব কম এবং বার্ষিক উষ্ণতার প্রসরের থেকে দৈনিক উষ্ণতার প্রসর বেশি ।

  1. মৌসুমি জলবায়ুর প্রধান বিচরণক্ষেত্র কাকে বলা হয় ?

Ans: ভারত উপমহাদেশের ভারত সমেত বাংলাদেশ , মায়ানমার প্রভৃতি হল মৌসুমি বায়ুর প্রধান বিচরণক্ষেত্র ।

  1. মৌসুমি জলবায়ু খামখেয়ালি প্রকৃতির কেন ?

Ans: মৌসুমি জলবায়ু অঞ্চলের প্রধান নিয়ন্ত্রক হল মৌসুমি বায়ু । এই বায়ুর চরিত্র অত্যন্ত খামখেয়ালি প্রকৃতির হওয়ায় জলবায়ু হয়েছে খামখেয়ালি প্রকৃতির ।

  1. আফ্রিকার দুটি উষ্ণ – মরু জলবায়ু অঞ্চলের নাম লেখো ।

Ans:: আফ্রিকার উত্তরে ( ১ ) সাহারা মরুভূমি এবং দক্ষিণে ( ২ ) কালাহরি মরুভূমি উষ্ণ মরু জলবায়ু অঞ্চলের অন্তর্গত ।

  1. এশিয়ার মধ্যপ্রাচ্যের দুটি দেশের নাম লেখো যেখানে ডয় মরু জলবায়ু দেখা যায় ।

Ans: ( ১ ) সৌদি আরব , ( ২ ) ওমান ।

  1. উষ্ণ মরু জলবায়ুর দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Ans: ( ১ ) জলবায়ু উষ্ণ – শুষ্ক প্রকৃতির । ( ২ ) বৃষ্টিপাতের পরিমাণ খুবই কম , < ২৫ সেমি ।

  1. ভূমধ্যসাগরের বাইরে দুটি ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলের নাম লেখো ।

Ans: ( 1 ) উত্তর আমেরিকা মহাদেশের ক্যালিফোর্নিয়া অঞ্চল , ( ২ ) অস্ট্রেলিয়ার পার্থ ও অ্যাডিলেড অঞ্চল ।

  1. ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুকে কেন ‘ বিনোদনের জলবায়ু বলা হয় ।

Ans: ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চল সমুদ্র উপকূলে অবস্থিত । সমুদ্রবায়ু ও স্থলবায়ুর প্রভাবে জলবায়ু থাকে সারাবছর নাতিশীতোয় ও মনোরম । তাই এটি ‘ মনোরমের জলবায়ু ’ বা ‘ Resort climate of the world ‘

  1. উত্তর গোলার্ধের দুটি স্টেপ জলবায়ুর নাম লেখো ।

Ans: ( ১ ) ইউরেশিয়ার স্টেপ অঞ্চল , ( ২ ) উ : আমেরিকার পম্পাস অঞ্চল ।

  1. দক্ষিণ গোলার্ধের দুটি স্টেপ জলবায়ুর নাম লেখো ।

Ans: ( ১ ) দক্ষিণ আমেরিকার পম্পাস , ( ২ ) অস্ট্রেলিয়ার ডাউপ্স্ ।

  1. ইউরোপের উত্তর – পশ্চিম অঞ্চলের জলবায়ু নাতিশীতোয় কেন ?

Ans: উষু উপসাগরীয় সমুদ্রস্রোতের কারণে ইউরোপের উত্তর – পশ্চিমের ব্রিটিশ দ্বীপপুঞ্জের উভয় পাশের জলবায়ু হয়েছে নাতিশীতোয় প্রকৃতির ।

  1. চরমভাবাপন্ন জলবায়ু কাকে বলে ?

Ans: যেখানে শীতকালে উষ্ণতা খুব কম এবং গ্রীষ্মকালে খুব বেশি অর্থাৎ বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর খুব বেশি তাকে চরমভাবাপন্ন জলবায়ু বলে । মহাদেশীয় জলবায়ু চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির ।

  1. মহাদেশীয় জলবায়ু চরমভাবাপন্ন কেন ?

Ans: সমুদ্র থেকে দূরে মহাদেশের অভ্যন্তরে সমুদ্রবায়ু ও স্থলবায়ুর প্রভাব থাকে না বলেই মহাদেশীয় জলবায়ু হয়েছে চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির ।

  1. তুন্দ্রা জলবায়ুর দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Ans: ( ১ ) তুন্দ্রা জলবায়ুতে শীতকাল দীর্ঘ এবং শীতের তীব্রতা খুব বেশি । ( ২ ) এখানে প্রবল তুষারপাত হয় ।

  1. দুটি তুদ্রা জলবায়ু অঞ্চলের নাম লেখো ।

Ans: ( ১ ) সাইবেরিয়ার উত্তর অংশ , ( ২ ) কানাডার উত্তর অংশ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কা ।

  1. বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র কাকে বলে ?

Ans: যে লেখচিত্রে বৃষ্টিপাত স্তম্ভাকারে এবং উষ্ণতা রেখাচিত্রের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয় তা হল বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র ।

  1. বৃষ্টিপাত উষ্ণতা লেখচিত্রে উষ্ণতা রেখাটির মধ্যাংশ উ : গোলার্ধে উত্তল এবং দক্ষিণ গোলার্ধে অবতল হয় কেন ?

Ans: এই লেখচিত্রে জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতি মাসের গড় উষ্ণতা ধরে অঙ্কন করা হয় । উত্তর গোলার্ধে এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উষ্ণতা বেশি ( গ্রীষ্মকাল ) থাকে বলে রেখাটির মধ্যাংশ হয় উত্তল এবং দক্ষিণ গোলার্ধে এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উষ্ণতা কম ( শীতকাল ) থাকে বলে রেখাটির মধ্যাংশ হয় অবতল ।

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের উষ্ণতা রেখাচিত্র থেকে গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব হয় না ও কেন ?

Ans: নিরক্ষীয় জলবায়ুর উষ্ণতা রেখাচিত্র থেকে গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব নয় । এই জলবায়ু অঞ্চল পৃথিবীর মাঝবরাবর বিস্তৃত হওয়ায় | সারাবছর গড় উষ্ণতা সমান । কোনো ঋতু পরিবর্তন এখানে ঘটে না । প্রতিমাসে গড় উষ্ণতা সমান বলেই গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব নয় ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর বৃষ্টিপাত স্তম্ভচিত্রে দুটি শীর্ষবিন্দু তৈরি হয় কেন ?

Ans: নিরক্ষীয় জলবায়ুতে প্রতিমাসে বৃষ্টি ঘটলেও সারাবছর মার্চ ও সেপ্টেম্বরে বৃষ্টির পরিমাণ বাকি মাসগুলির তুলনায় বেশি বলেই সারাবছরের স্তম্ভচিত্রে মার্চ ও সেপ্টেম্বরে দুটি শীর্ষবিন্দু তৈরি হয় ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলকে ‘ 4 O’clock shower region ‘ বলা হয় কেন ?

Ans: নিরক্ষীয় অঞ্চলে প্রবল উষ্ণতায় জল বাষ্পীভূত হয়ে অপরাহ্নে কিউমুলোনিম্বাস মেঘ সৃষ্টির মাধ্যমে পরিচলন পদ্ধতিতে বৃষ্টি হয় । প্রায় প্রতিদিন অপরাহ্নে এখানে বৃষ্টি হয় বলেই এই অঞ্চল ‘ 4 O’clock shower region ‘ নামে পরিচিত ।

সংক্ষিপ্ত ব্যাখাধর্মী প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Prithibir Mukho Jolobayu Anchal Question and Answer : 

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর অবস্থান উল্লেখ করো ।

Ans: নিরক্ষরেখার উভয় পাশে গড়ে ৫ ° -১০ ° অক্ষরেখার মধ্যে নিরক্ষীয় জলবায়ু বিস্তৃত । প্রধান অঞ্চলগুলি হল— ( ক ) দক্ষিণ C আমেরিকায় ব্রাজিলের মধ্যভাগ , পেরু , কলম্বিয়া , ইকুয়েডর , বলিভিয়া , ( খ ) আফ্রিকার কঙ্গো , গ্যাবন , ক্যামেরুন , অ্যাঙ্গোলা , ( গ ) এশিয়ার মালয়েশিয়া , ইন্দোনেশিয়া , সিঙ্গাপুর ইত্যাদি । 

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো । 

Ans: ( i ) নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলে গড় উষ্ণতা সারাবছর খুব বেশি গড়ে ২৭ ° C ( ii ) বার্ষিক গড় উষ্ণতার প্রসর খুব কম ( ২ ° -৩ ° C ) । বার্ষিক গড় উষ্ণতার পার্থক্যের থেকে দৈনিক উষ্ণতার পার্থক্য ( ৪ ° -১০ ° C ) বেশি । ( iii ) সারাবছর ধরেই বৃষ্টি হয় । বার্ষিক গড় বৃষ্টি ২০০-২৫০ সেমি । বৃষ্টির অধিকাংশই ঘটে অপরাহ্ণে । ( iv ) জলবায়ু ঋতু পরিবর্তনহীন । সারাবছর একটি ঋতু বিরাজ করে ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলের জলবায়ু উদ্বু – আর্দ্র ও প্রকৃতির কেন ?

Ans: ( i ) নিরক্ষীয় অঞ্চলে সারাবছর সূর্যকিরণ লম্বভাবে পড়ে এবং দিন ও রাত্রির দৈর্ঘ্য সমান বলে গড় উষ্ণতা বেশি । ( ii ) নিরক্ষীয় অঞ্চল বরাবর সমুদ্রের বিস্তার বেশি বলে অধিক ত উষ্ণতায় জল বাষ্পীভূত হয় । ফলে বাতাসে আর্দ্রতা খুব বেশি । তাই সারাবছর ধরেই এখানে জলবায়ু উষ্ণ – আর্দ্র প্রকৃতির ।

  1. পৃথিবীর কোথায় কোথায় মৌসুমি জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় ?

Ans: উভয় গোলার্ধের ১০ ° -২৫ ° অক্ষরেখার মধ্যে ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় । অঞ্চলগুলি হল – ( i ) এশিয়ার ভারতীয় উপমহাদেশের ভারত , বাংলাদেশ , মায়ানমার , ভিয়েতনাম , চিনের দক্ষিণ অংশ ; ( ii ) আফ্রিকার পূর্বে মোজাম্বিক , কেনিয়া , সোমালি এবং পশ্চিমে গিনি , সিয়েরালিওন আভরি কোর্স্ট ; ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার ভেনেজুয়েলা , গায়ানা , সুরিনাম ; ( iv ) অস্ট্রেলিয়ার কার্পেন্টারিয়া উপসাগর অঞ্চল ।

  1. পৃথিবীর উষ্ণ মরু জলবায়ু কোথায় কোথায় দেখা যায় ?

Ans: ক্রান্তীয় মরুভূমি হল উষ্ণ মরু জলবায়ু অঞ্চল । ( i ) আফ্রিকার উত্তরে সাহারা ও দক্ষিণে কালাহারি মরুভূমি ; ( ii ) উত্তর আমেরিকার সোনেরান ; ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার আটাকামা ; ( iv ) অস্ট্রেলিয়ার অস্ট্রেলিয়া মরুভূমি এবং ( v ) মধ্যপ্রাচ্যের সৌদি আরব , ইয়ামেন , ওমান , কাতার ইত্যাদি । 

  1. উষ্ণ মরু জলবায়ুর প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Ans: ( i ) জলবায়ু উষ্ণ ও শুষ্ক এবং চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির । ( ii ) গ্রীষ্মকালের গড় উষ্ণতা ৩০ ° -৩৫ ° C এবং শীতকালে ২০ ° C । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসার বেশ বেশি , প্রায় ১৫ ° C । উষ্ণতায় চরমতা খুব বেশি । ( iii ) বার্ষিক গড় বৃষ্টি কম , Z২৫ সেমি । অধিকাংশ মাস বৃষ্টিহীন । 

  1. উষ্ণ মরু জলবায়ুতে বৃষ্টি কম হয় কেন ?

Ans: ( i ) উষ্ণ মরু জলবায়ু উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শাস্তবলয়ের অন্তর্গত । ( ii ) এখানে শুষ্ক বায়ু উপর থেকে নীচে ( বায়ুস্রোত ) নেমে আসে । ( iii ) ফলে আকাশে মেঘের সঞ্চার হয় না এবং বৃষ্টিও হয় না । এখানে বাৎসরিক গড় বৃষ্টি ২৫ সেমিরও কম । 

  1. ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু কোথায় কোথ পরিলক্ষিত হয় ?

Ans: উভয় গোলার্ধের ৩০ ° -৪০ ° অক্ষরেখার মধ্যে নাতিশীতোয় মণ্ডলে ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু দেখা যায় । প্রধান অঞ্চলগুলি হল— ( i ) ভূমধ্যসাগরের তীরবর্তী ইউরোপ , আফ্রিকা ও এশিয়ার দেশসমূহ ; ( ii ) উত্তর আমেরিকার লস এঞ্জেলস ; ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার চিলির মধ্যভাগ ; ( iv ) দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন ; ( v ) অস্ট্রেলিয়ার পার্থ ও অ্যাডিলেড । 

  1. ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে গ্রীষ্মকাল শুষ্ক এবং শীতকাল আৰ্দ্ৰ কেন ?

 অথবা , ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে শীতকালে বৃষ্টি হয় কেন ?

Ans: ( i ) গ্রীষ্মকালে ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শান্ত বলয় অবস্থান করে বলে বায়ু উপর থেকে নীচে নেমে আসে । ফলে আকাশে মেঘের সঞ্চার হয় না । এবং বৃষ্টিপাত ঘটে না । ( ii ) পক্ষান্তরে শীতকালে এই অঞ্চল থেকে উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয় সরে যায় । অর্থাৎ অঞ্চলটি চাপ বলয় মুক্ত হয় বলে পশ্চিমা বায়ু প্রবাহিত হতে পারে । পশ্চিমা বায়ু সমুদ্র থেকে জলীয় বাষ্প সংগ্রহ করে এই অঞ্চলে প্রবেশ করে বৃষ্টিপাত ঘটায় । তাই শীতকালে এখানে বৃষ্টিপাত হয় এবং গ্রীষ্মকাল শুষ্ক থাকে ।

  1. স্টেপ জলবায়ু কোথায় কোথায় দেখা যায় ?

Ans: পৃথিবীর নাতিশীতোয় তৃণভূমি অঞ্চলগুলি স্টেপ জলবায়ুর অন্তর্গত । অঞ্চলগুলি হল – ( i ) ইউরেশিয়ার স্টেপ অঞ্চল , ( ii ) উত্তর আমেরিকার প্রেইরী অঞ্চল , ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার পম্পাস অঞ্চল , ( iv ) দক্ষিণ আফ্রিকার ভেল্ড এবং ( v ) অস্ট্রেলিয়ার ডাউনস্ অঞ্চল ।

  1. স্টেপ জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Ans: ( i ) মহাদেশের অভ্যন্তরে অবস্থানের কারণে জলবায়ু চরম প্রকৃতির । ( ii ) শীতকালে উষ্ণতা খুব কম হয় । কখনো – কখনো হিমাঙ্কের অনেকটা নীচে নামে । ( iii ) গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা থাকে ২০০-২৫ ° C এবং বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর ২৫ ° -৩০ ° C । ( iv ) গড় বৃষ্টি ২৫-৫০ সেমি এবং শীতকালে বরফ পড়ে ।

  1. তুন্দ্রা জলবায়ুর অবস্থান উল্লেখ করো ।

Ans: উত্তর গোলার্ধের ৭০ ° -৮০ ° অক্ষরেখার মধ্যে তুন্দ্রা জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় । প্রধান অঞ্চলগুলি হল – ( i ) এশিয়ার সাইবেরিয়ার উত্তর অংশ ; ( ii ) ইউরোপের নরওয়ে , সুইডেন ও অংশ ; ( iii ) উত্তর আমেরিকার কানাডার উত্তর ফিনল্যান্ডের অংশ , গ্রিনল্যান্ডের দক্ষিণ উপকূল এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কা ।

  1. তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Ans: তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : ( ১ ) মেরুপ্রায় অঞ্চলে অবস্থানের কারণে শীতকাল দীর্ঘস্থায়ী ( ৭–৮ মাস ) এবং গ্রীষ্মকাল স্বল্পস্থায়ী ( ৪-৫ মাস ) । ( ২ ) শীতকালের গড় উষ্ণতা হয় – ২০ ° সেলসিয়াস এবং গ্রীষ্মকালে ০ ° থেকে ১০ ° C । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর খুব বেশি , প্রায় ৩০ ° -80 ° C । ( ৪ ) শীতকালে প্রবল তুষারপাত হয় এবং তুষারঝড় ( ব্লিজার্ড ) ঘটে । 

পার্থক্য নিরূপণ করো | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Prithibir Mukho Jolobayu Anchal Question and Answer : 

  1. ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ু ও ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর পার্থক্য লেখো ।
ভিত্তি ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ু  ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু
অবস্থান উভয় গোলার্ধে ১০° – ২৫° আক্ষরেখার মধ্যে এই জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় । প্রধান অঞ্চল হল ভারতীয় উপমহাদেশ । উভয় গোলার্ধে ২০° – ৩০° অক্ষরেখার মধ্যে এই জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় । প্রধান। অঞ্চল হল ভূমধ্যসাগরের তীরবর্তী অঞ্চল ।
প্রকৃতি গ্রীষ্মকালে আদ্র এবং শীতকাল শুষ্ক । গ্রীষ্মকালে শুষ্ক ও শীতকাল আদ্র ।
উষ্ণতা গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ২৭° – ৩২° এবং শীতকালে ১৫° – ২০° সেলসিয়াস । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর কিছুটা বেশি । গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ২০° – ২২° সেলসিয়াস এবং শীতকালে ১০° – ১৫° সেলসিয়াস ।
বৃষ্টি গ্রীষ্মকালে মৌসুমি বায়ুর আগমনে গড় ১৫০ – ২৫০ সেমি বৃষ্টি হয় । শীতকালে পশ্চিমা বায়ুর প্রভাবে গড়ে ৫০ – ৭০ সেমি বৃষ্টি হয় । 

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Prithibir Mukho Jolobayu Anchal Question and Answer : 

1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Ans: নিরক্ষীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) ঋতু পরিবর্তনহীন জলবায়ু : এই জলবায়ু অঞ্চলে সারাবছর একটি ঋতু ( উষ্ণ – আর্দ্র গ্রীষ্ম ঋতু ) পরিলক্ষিত হয় । ঋতু পরিবর্তন এখানে লক্ষ করা যায় না । 

( ২ ) উষ্ণতা গড় উষ্ণতা এখানে বেশি , গড়ে ২৭ ° C সারাবছর উষ্ণতা প্রায় একই থাকে । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর খুব কম ( ২ ° -৩ ° C ) এবং বার্ষিক উষ্ণতার প্রসরের থেকে দৈনিক উষ্ণতার প্রসর এখানে বেশি । 

( ৩ ) বৃষ্টি : প্রায় প্রতিদিন অপরাহ্লে এখানে পরিচলন পদ্ধতিতে বৃষ্টি হয় । বার্ষিক গড় বৃষ্টি ২০০-২৫০ সেমি । প্রতি মাসেই এখানে বৃষ্টি হয় । তবে মার্চ ও সেপ্টেম্বরে বৃষ্টির পরিমাণ বেশি । 

( ৪ ) নিরক্ষীয় শান্তবলয় : এই অঞ্চল নিরক্ষীয় শান্তবলয়ের অন্তর্গত । ভূপৃষ্ঠের সমান্তরালে এখানে বায়ুপ্রবাহ ঘটে না । উষ্ণ আর্দ্র বায়ু পরিচলন পদ্ধতিতে ঊর্ধ্বমুখী হয় । 

( ৫ ) ভ্যাপসা গরম ও গুমোট আবহাওয়া : অধিক উষ্ণতা ও বাতাসে অধিক আর্দ্রতার প্রভাবে আবহাওয়া সর্বদা ভ্যাপসা গরম ও গুমোট থাকে । বৃষ্টির পর রাত্রে উষ্ণতা কিছুটা কমে । তাই এখানে রাত্রিকে শীতকাল ’ বলা হয় । 

2. ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো । 

ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) মৌসুমি বায়ুর অত্যধিক প্রভাব : এই জলবায়ু অঞ্চলের ঋতু পরিবর্তন , বৃষ্টিপাত , উষ্ণতা , আর্দ্রতা , বায়ুপ্রবাহ প্রভৃতি বিষয়গুলি মৌসুমি বায়ু দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় । 

( ২ ) বিপরীতমুখী বায়ুপ্রবাহ : মৌসুমি বায়ুর আগমনে এখানে বায়ু সমুদ্র থেকে স্থলভাগের দিকে এবং প্রত্যাগমনে স্থলভাগ থেকে সমুদ্রের দিকে বয়ে যায় । ঋতুপরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বায়ুপ্রবাহের ১৮০ ° পরিবর্তন ঘটে । 

( ৩ ) বৃষ্টিপাত : মোট বৃষ্টির প্রায় ৯০ ভাগ ঘটে মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে । মৌসুমি বায়ু যেহেতু খামখেয়ালি প্রকৃতির তাই বৃষ্টির বাৎসরিক পরিমাণের তারতম্য ঘটে । বৃষ্টির আঞ্চলিক বণ্টনের তারতম্যও খুব বেশি । এখানে অঞ্চলভিত্তিক গড় বৃষ্টি ৫০-২৫০ সেমি । 

( ৪ ) উষ্ণতা : গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ২৭ ° –৩২ ° সেলসিয়াস এবং শীতকালে ১৫ ° -২০ ° সেলসিয়াস । মৌসুমি বায়ুর আগমনে । বৃষ্টির প্রভাবে উষ্ণতা একলাফে অনেকটা কমে । 

( ৫ ) ঋতু পরিবর্তনহীন মৌসুমি বায়ুর আগমন ও প্রত্যাগমনের ওপর ভিত্তি করে এখানে চারটি সুস্পষ্ট ঋতু ( গ্রীষ্মকাল , বর্ষাকাল । শরৎকাল , শীতকাল ) পরিলক্ষিত হয় । 

3. ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো ।

Ans: ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) নাতিশীতোয় ও মনোরম জলবায়ু সমুদ্র উপকূলে অবস্থানের কারণে সমুদ্র বায়ু ও স্থলবায়ুর প্রভাবে জলবায়ু থাকে সারাবছর মনোরম প্রকৃতির । তাই এই জলবায়ুকে বলা হয় । ‘ বিনোদনের জলবায়ু ’ বা ‘ Resort Climate of the World | 

( ২ ) শীতকালে নিম্নচাপ এবং গ্রীষ্মকালে উচ্চচাপ : উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয় গ্রীষ্মকালে এখানে অবস্থান করায় বায়ুচাপ বেশি । আবার শীতকালে উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয় এখান থেকে সরে যায় । বলে বায়ুচাপ কম হয় । 

( ৩ ) শুষ্ক গ্রীষ্মকাল এবং আর্দ্র শীতকাল : উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শান্তবলয় অবস্থান করায় গ্রীষ্মকালে এখানে বৃষ্টি হয় না । শীতকালে এই অঞ্চল থেকে উচ্চচাপ বলয় সরে যাওয়ায় চাপবলয় মুক্ত হয় । বলে পশ্চিমা বায়ু প্রবেশ করে বৃষ্টিপাত ঘটায় । 

( ৪ ) উষ্ণতা : গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ২০ ° -২৫ ° C এবং শীতকালে ৫ ° -১০ ° C । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর ১০ ° -১৫ ° C । ( ৫ ) বৃষ্টিপাত : শীতকালে পশ্চিমা বায়ুর প্রভাবে গড়ে ৫০-৭৫ সেমি বৃষ্টি হয় । ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলকে বলা হয় ‘ শীতকালীন বৃষ্টিপাতের দেশ ‘ ।

4. পৃথিবীর উষ্ণ মরু জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো ।

Ans: উষু মরু জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) চরমভাবাপন্ন জলবায়ু মরুভূমির জলবায়ু চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর এখানে খুব বেশি । দিনে যেমন উষ্ণতা বেশ বাড়ে তেমনি রাত্রেও উষ্ণতা কমে । 

( ২ ) উগ্ন ও শুষ্ক জলবায়ু : সারাবছর আদ্রহীন উষ্ণ শুষ্ক জলবায়ু বিরাজ করে । 

( ৩ ) শান্তবলয়ের অবস্থান । এই অঞ্চল উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শান্তবলয়ের অন্তর্গত । বায়ু এখানে ঊর্ধ্বস্থান থেকে নীচের দিকে । ধীরে ধীরে ( বায়ুস্রোত ) নেমে আসে । 

( ৪ ) উষ্ণতা : গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ৩০০-৩৫ ° C এবং শীতকালে ২০০-২৫ ° C । গ্রীষ্মের দুপুরে উষ্ণতা ৫০ ° C পর্যন্ত ওঠে । বার্ষিক গড় উষ্ণতার প্রসর ১৫ ° -২০ ° C এবং দৈনিক উষ্ণতার প্রসর ২০ ° সেলসিয়াস । 

( ৫ ) বৃষ্টিপাত : উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয়ে অবস্থান করায় বায়ু সর্বদা নিম্নমুখী বলে আকাশে মেঘের সঞ্চার হয় না । তাই বৃষ্টিও খুব কম । বার্ষিক গড় বৃষ্টি ২৫ সেমির কম । 

5. তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Ans: তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) দীর্ঘস্থায়ী শীতকাল ; উপমেরু অঞ্চল বরাবর এই জলবায়ু অঞ্চল অবস্থানের কারণে এখানে প্রায় ৯ মাস শীতকাল বিরাজ করে , যখন উষ্ণতা হিমাঙ্কের অনেকটা নীচে থাকে । 

( ২ ) স্বল্পস্থায়ী গ্রীষ্মকাল এখানে গ্রীষ্মকাল মাত্র ৩ মাস । এই সময় উষ্ণতা হিমাঙ্কের কিছুটা ওপরে থাকে । 

( ৩ ) উষ্ণতা : সারাবছর এখানে উষ্ণতা কম । শীতকালে গড় উষ্ণতা থাকে – ২০ ° C এবং গ্রীষ্মকালে ০ ° থেকে ১০ ° C । শীতকালে কখনো কখনো উষ্ণতা হিমাঙ্কের নীচে ৫০ ° C পর্যন্ত নামে । 

( ৪ ) বৃষ্টিপাত : গ্রীষ্মকালে ঘূর্ণবাতের প্রভাবে ২৫-৫০ সেমি বৃষ্টি হয় । 

( ৫ ) তুষারপাত ও তুষারঝড় : শীতকালে উত্তর দিক থেকে কনকনে ঠান্ডা ঝোড়ো বাতাস বয় । প্রায়শই এখানে শীতকালে বরফ পড়ে এবং প্রবল তুষারঝড় ( ব্লিজার্ড ) দেখা দেয় ।

============================================================================

পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়)

অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) – মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion : 

  1. উষ্ণতা বৃষ্টিপাত লেখচিত্রে বৃষ্টিপাতকে কোন্ মানচিত্রে দেখানো হয় ?

Answer : জলবায়ু উত্তর স্তম্ভের আকারে ।

  1. লেখচিত্রে রেখার আকারে কোন্ জলবায়ুর উপাদানকে দেখানো হয় ?

Answer : উষ্ণতা । 

  1. কোন্ জলবায়ুতে গ্রীষ্মকাল শুষ্ক ও শীতকাল আর্দ্র ?

Answer : ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ুকে উষ্ণ সমুদ্রস্রোত সর্বাধিক প্রভাবিত করে ?

Answer : পশ্চিম উপকূলীয় সামুদ্রিক জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ুতে উষ্ণ আর্দ্র ঋতু পরিবর্তনহীন পরিলক্ষিত হয় ?

Answer : নিরক্ষীয় জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের লেখচিত্র থেকে গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব হয় না ?

Answer : নিরক্ষীয় জলবায়ু ।

  1. ‘ 4 O’clock shower region ‘ কোন্ জলবায়ুকে বলা হয় ?

Answer : নিরক্ষীয় জলবায়ু ।

  1. কোন্ জলবায়ুতে দুপুরে উষ্ণতা ৫০ ° C পর্যন্ত ওঠে ।

Answer : ক্রান্তীয় মরু জলবায়ু ।

MCQ | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) – মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion :

  1. কোন্‌টি ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য -(A) সারাবছর বৃষ্টি(B) চরম জলবায়ু(C) শুষ্ক গ্রীষ্মকাল ও আর্দ্র শীতকাল(D) প্রবল তুষারপাত

Answer : (C) শুষ্ক গ্রীষ্মকাল ও আর্দ্র শীতকাল

  1. দক্ষিণ গোলার্ধের যে – কোনো স্থানের উষ্ণতা রেখাচিত্রটি কেমন হয় -(A) মধ্যভাগ অবতল(B) মধ্যভাগ উত্তল(C) সরল(D) কোনোটিই নয়

Answer : (A) মধ্যভাগ অবতল

  1. কোন্ বায়ুর প্রভাবে ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে শীতকালে বৃষ্টি হয়— (A) আয়ন বায়ু(B) মেরু বায়ু(C) পশ্চিমা বায়ু(D) মৌসুমি বায়ু

Answer : (C) পশ্চিমা বায়ু

  1. সাইবেরিয়া কোন্ জলবায়ুর অন্তর্গত -(A) ক্রান্তীয় মৌসুমি(B) নিরক্ষীয়(C) ভূমধ্যসাগরীয়(D) তুন্দ্রা

Answer : (B) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের বৃষ্টিপাত লেখচিত্রে দুটি সুস্পষ্ট শীর্ষবিন্দু দেখা যায়—(A) মৌসুমি (B) ভূমধ্যসাগরীয়(C) তুন্দ্রা(D) নিরক্ষীয়

Answer : (D) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ুর বৃষ্টিপাত লেখচিত্রে বেশ কয়েকটি মাসে স্তম্ভ থাকে না -(A) উষ্ণ মরু (B) ভূমধ্যসাগরীয়(C) মৌসুমি(D) নিরক্ষীয়

Answer : (A) উষ্ণ মরু 

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বার্ষিক উষ্ণতার গড় সারাবছরে প্রায় একই থাকে -(A) নিরক্ষীয়(B) মৌসুমি(C) মরু(D) তুন্দ্রা

Answer : (A) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে কালবৈশাখী দেখা যায়—(A) ক্রান্তীয় মরু(B) মৌসুমি(C) ভূমধ্যসাগরীয়(D) তুন্দ্রা

Answer : (B) মৌসুমি

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে উষ্ণতা রেখাটি প্রায় সরল হয়— (A) তুন্দ্রা (B) ভূমধ্যসাগরীয়(C) পশ্চিম ইউরোপীয়(D) নিরক্ষীয়

Answer : (D) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ আবহবিজ্ঞানী পৃথিবীর জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করেন— (A) ডেভিস(B) গিলবার্ট(C) কোপেন(D) পাওয়েল

Answer : (C) কোপেন

  1. কোন জলবায়ু অঞ্চলে ঋতুপরিবর্তন লক্ষ করা যায় না -(A) নিরক্ষীয় (B) ক্রান্তীয় মৌসুমি(C) ভূমধ্যসাগরীয়(D) চিনদেশীয় 

Answer : (A) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে শীতকাল বর্ষাকাল—(A) ক্রান্তীয় মৌসুমি(B) উষ্ণ মরু(C) ভূমধ্যসাগরীয়(D) নিরক্ষীয়

Answer : (C) ভূমধ্যসাগরীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বার্ষিক উষ্ণতার প্রসার সবচেয়ে কম – (A) তুন্দ্রা(B) ক্রান্তীয় মরু(C) স্টেপ(D) নিরক্ষীয় 

Answer : (D) নিরক্ষীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বার্ষিক বৃষ্টি খুব কম – (A) নিরক্ষীয়(B) ক্রান্তীয় মৌসুমি(C) উষ্ণ মরু(D) ভূমধ্যসাগরীয়

Answer : (C) উষ্ণ মরু

  1. কোন জলবায়ু অঞ্চলে দুপুরে সর্বোচ্চ উষ্ণতা ৫০ ° C পর্যন্ত হয়— (A) নিরক্ষীয়(B) তুন্দ্রা (C) পশ্চিম ইউরোপীয়(D) উষ্ণ মরু 

Answer : (D) উষ্ণ মরু

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে বছরের অর্ধেকের বেশি সময় বরফ । ঢাকা থাকে—(A) ক্রান্তীয় মরু(B) তুন্দ্রা(C) নিরক্ষীয়(D) ভূমধ্যসাগরীয়

Answer : (B) তুন্দ্রা

  1. কোন্ দেশটির জলবায়ু নিরক্ষীয় জলবায়ু প্রকৃতির— (A) মালয়েশিয়া(B) রাশিয়া(C) চিন(D) ভারত

Answer : (A) মালয়েশিয়া

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলটি সমুদ্র উপকূলে অবস্থিত -(A) স্টেপ জলবায়ু(B) ক্রান্তীয় মরু(C) ভূমধ্যসাগরীয়(D) মহাদেশীয়

Answer : (B) ক্রান্তীয় মরু

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলে সারাবছর বৃষ্টি হয় – (A) নিরক্ষীয়(B) তুন্দ্রা(C) ক্রান্তীয় মরু(D) মহাদেশীয়

Answer : (D) মহাদেশীয়

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের জলবায়ু চরম প্রকৃতির— (A) নিরক্ষীয়(B) পশ্চিম ইউরোপীয়(C) মহাদেশীয়(D) ভূমধ্যসাগরীয়

Answer : (C) মহাদেশীয়

সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) – মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion : 

  1. এশিয়ার মধ্যপ্রাচ্যের দুটি দেশের নাম লেখো যেখানে ডয় মরু জলবায়ু দেখা যায় ।

Answer : ( ১ ) সৌদি আরব , ( ২ ) ওমান ।

  1. উষ্ণ মরু জলবায়ুর দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Answer : ( ১ ) জলবায়ু উষ্ণ – শুষ্ক প্রকৃতির । ( ২ ) বৃষ্টিপাতের পরিমাণ খুবই কম , < ২৫ সেমি ।

  1. ভূমধ্যসাগরের বাইরে দুটি ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলের নাম লেখো ।

Answer : ( 1 ) উত্তর আমেরিকা মহাদেশের ক্যালিফোর্নিয়া অঞ্চল , ( ২ ) অস্ট্রেলিয়ার পার্থ ও অ্যাডিলেড অঞ্চল ।

  1. ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুকে কেন ‘ বিনোদনের জলবায়ু বলা হয় ।

Answer : ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চল সমুদ্র উপকূলে অবস্থিত । সমুদ্রবায়ু ও স্থলবায়ুর প্রভাবে জলবায়ু থাকে সারাবছর নাতিশীতোয় ও মনোরম । তাই এটি ‘ মনোরমের জলবায়ু ’ বা ‘ Resort climate of the world ‘

  1. উত্তর গোলার্ধের দুটি স্টেপ জলবায়ুর নাম লেখো ।

Answer : ( ১ ) ইউরেশিয়ার স্টেপ অঞ্চল , ( ২ ) উ : আমেরিকার পম্পাস অঞ্চল ।

  1. দক্ষিণ গোলার্ধের দুটি স্টেপ জলবায়ুর নাম লেখো ।

Answer : ( ১ ) দক্ষিণ আমেরিকার পম্পাস , ( ২ ) অস্ট্রেলিয়ার ডাউপ্স্ ।

  1. ইউরোপের উত্তর – পশ্চিম অঞ্চলের জলবায়ু নাতিশীতোয় কেন ?

Answer : উষু উপসাগরীয় সমুদ্রস্রোতের কারণে ইউরোপের উত্তর – পশ্চিমের ব্রিটিশ দ্বীপপুঞ্জের উভয় পাশের জলবায়ু হয়েছে নাতিশীতোয় প্রকৃতির ।

  1. চরমভাবাপন্ন জলবায়ু কাকে বলে ?

Answer : যেখানে শীতকালে উষ্ণতা খুব কম এবং গ্রীষ্মকালে খুব বেশি অর্থাৎ বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর খুব বেশি তাকে চরমভাবাপন্ন জলবায়ু বলে । মহাদেশীয় জলবায়ু চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির ।

  1. মহাদেশীয় জলবায়ু চরমভাবাপন্ন কেন ?

Answer : সমুদ্র থেকে দূরে মহাদেশের অভ্যন্তরে সমুদ্রবায়ু ও স্থলবায়ুর প্রভাব থাকে না বলেই মহাদেশীয় জলবায়ু হয়েছে চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির ।

  1. তুন্দ্রা জলবায়ুর দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Answer : ( ১ ) তুন্দ্রা জলবায়ুতে শীতকাল দীর্ঘ এবং শীতের তীব্রতা খুব বেশি । ( ২ ) এখানে প্রবল তুষারপাত হয় ।

  1. দুটি তুদ্রা জলবায়ু অঞ্চলের নাম লেখো ।

Answer : ( ১ ) সাইবেরিয়ার উত্তর অংশ , ( ২ ) কানাডার উত্তর অংশ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কা ।

  1. বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র কাকে বলে ?

Answer : যে লেখচিত্রে বৃষ্টিপাত স্তম্ভাকারে এবং উষ্ণতা রেখাচিত্রের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয় তা হল বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র ।

  1. বৃষ্টিপাত উষ্ণতা লেখচিত্রে উষ্ণতা রেখাটির মধ্যাংশ উ : গোলার্ধে উত্তল এবং দক্ষিণ গোলার্ধে অবতল হয় কেন ?

Answer : এই লেখচিত্রে জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতি মাসের গড় উষ্ণতা ধরে অঙ্কন করা হয় । উত্তর গোলার্ধে এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উষ্ণতা বেশি ( গ্রীষ্মকাল ) থাকে বলে রেখাটির মধ্যাংশ হয় উত্তল এবং দক্ষিণ গোলার্ধে এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উষ্ণতা কম ( শীতকাল ) থাকে বলে রেখাটির মধ্যাংশ হয় অবতল ।

  1. কোন্ জলবায়ু অঞ্চলের উষ্ণতা রেখাচিত্র থেকে গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব হয় না ও কেন ?

Answer : নিরক্ষীয় জলবায়ুর উষ্ণতা রেখাচিত্র থেকে গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব নয় । এই জলবায়ু অঞ্চল পৃথিবীর মাঝবরাবর বিস্তৃত হওয়ায় | সারাবছর গড় উষ্ণতা সমান । কোনো ঋতু পরিবর্তন এখানে ঘটে না । প্রতিমাসে গড় উষ্ণতা সমান বলেই গোলার্ধ নির্ণয় সম্ভব নয় ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর বৃষ্টিপাত স্তম্ভচিত্রে দুটি শীর্ষবিন্দু তৈরি হয় কেন ?

Answer : নিরক্ষীয় জলবায়ুতে প্রতিমাসে বৃষ্টি ঘটলেও সারাবছর মার্চ ও সেপ্টেম্বরে বৃষ্টির পরিমাণ বাকি মাসগুলির তুলনায় বেশি বলেই সারাবছরের স্তম্ভচিত্রে মার্চ ও সেপ্টেম্বরে দুটি শীর্ষবিন্দু তৈরি হয় ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলকে ‘ 4 O’clock shower region ‘ বলা হয় কেন ?

Answer : নিরক্ষীয় অঞ্চলে প্রবল উষ্ণতায় জল বাষ্পীভূত হয়ে অপরাহ্নে কিউমুলোনিম্বাস মেঘ সৃষ্টির মাধ্যমে পরিচলন পদ্ধতিতে বৃষ্টি হয় । প্রায় প্রতিদিন অপরাহ্নে এখানে বৃষ্টি হয় বলেই এই অঞ্চল ‘ 4 O’clock shower region ‘ নামে পরিচিত ।

  1. জলবায়ু অঞ্চল কাকে বলে ?

Answer : নির্দিষ্ট অঞ্চল যেখানে জলবায়ুর উপাদানগুলির কার্যকারিতা প্রায় এক এবং অঞ্চলটিতে একই ধরনের জলবায়ু বিরাজ করে তা হল জলবায়ু অঞ্চল ।

  1. কোন্ কোন্ আবহবিজ্ঞানী জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করেন ?

Answer : কোপেন , থর্নওয়েট , ট্রেওয়ার্থা প্রভৃতি । কোন্ কোন্ বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করা হয় ? | উত্তর ( ১ ) মোট বিকিরণ , ( ২ ) উষ্ণতা , ( ৩ ) বৃষ্টিপাত , ( ৪ ) স্বাভাবিক উদ্ভিদ , ( ৫ ) মৃত্তিকা — এই পাঁচটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে জলবায়ুর শ্রেণিবিভাগ করা হয় ।

  1. আমেরিকার দুটি দেশের নাম লেখো যেখানে নিরক্ষীয় জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় ?

Answer : ( ১ ) ব্রাজিলের মধ্যভাগের সেলভা অরণ্য , ( ২ ) ইকুয়েডর । প্রশ্ন এশিয়া মহাদেশের কোন কোন দেশে নিরক্ষীয় জলবায়ু দেখা যায় ? উত্তর ( ১ ) মালয়েশিয়া , ( ২ ) ইন্দোনেশিয়া , ( ৩ ) সিঙ্গাপুর । নিরক্ষীয় জলবায়ুতে গড় উষ্ণতা সারাবছর বেশি C | উত্তর ( ১ ) সারাবছর নিরক্ষীয় অঞ্চলে সূর্যকিরণ লম্বভাবে পড়ে এবং ( ২ ) দিন ও রাতের দৈর্ঘ্য সারাবছর সমান । এই দুটি কারণে গড় উষ্ণতা এখানে সারাবছর বেশি ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলে প্রবল বৃষ্টি হয় কেন ?

Answer : ( ১ ) নিরক্ষীয় অঞ্চলে প্রায় সারাবছর সূর্যরশ্মি লম্বভাবে পড়ে এবং ( ২ ) সমুদ্রের বিস্তার খুব বেশি । এই দুটি কারণে প্রায় প্রতিদিন প্রবল উষ্ণতায় জল বাষ্পীভূত হয়ে অপরাহ্নে বৃষ্টি ঘটায় ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Answer : ( ১ ) সারাবছর উষ্ণ – আর্দ্র জলবায়ু , ( ২ ) জলবায়ুতে ঋতু পরিবর্তন ঘটে না । নিরক্ষীয় অঞ্চলে কোন্ দুটি মাসে বৃষ্টি বেশি ? উত্তর ( ১ ) মার্চ ও ( ২ ) সেপ্টেম্বরে — এই দুটি মাসে বৃষ্টির পরিমাণ বাকি মাসের তুলনায় বেশি ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর উষ্ণতার দুটি বৈশিষ্ট্য লেখো ।

Answer : ( ১ ) সারাবছর গড় উষ্ণতা বেশি ( ২৭ ° C ) এবং প্রতি মাসেই উষ্ণতা একইপ্রকার । ( ২ ) বার্ষিক গড় উষ্ণতার প্রসর খুব কম এবং বার্ষিক উষ্ণতার প্রসরের থেকে দৈনিক উষ্ণতার প্রসর বেশি ।

  1. মৌসুমি জলবায়ুর প্রধান বিচরণক্ষেত্র কাকে বলা হয় ?

Answer : ভারত উপমহাদেশের ভারত সমেত বাংলাদেশ , মায়ানমার প্রভৃতি হল মৌসুমি বায়ুর প্রধান বিচরণক্ষেত্র ।

  1. মৌসুমি জলবায়ু খামখেয়ালি প্রকৃতির কেন ?

Answer : মৌসুমি জলবায়ু অঞ্চলের প্রধান নিয়ন্ত্রক হল মৌসুমি বায়ু । এই বায়ুর চরিত্র অত্যন্ত খামখেয়ালি প্রকৃতির হওয়ায় জলবায়ু হয়েছে খামখেয়ালি প্রকৃতির ।

  1. আফ্রিকার দুটি উষ্ণ – মরু জলবায়ু অঞ্চলের নাম লেখো ।

Answer :: আফ্রিকার উত্তরে ( ১ ) সাহারা মরুভূমি এবং দক্ষিণে ( ২ ) কালাহরি মরুভূমি উষ্ণ মরু জলবায়ু অঞ্চলের অন্তর্গত ।

সংক্ষিপ্ত ব্যাখাধর্মী প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) – মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion : 

  1. উষ্ণ মরু জলবায়ুতে বৃষ্টি কম হয় কেন ?

Answer : ( i ) উষ্ণ মরু জলবায়ু উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শাস্তবলয়ের অন্তর্গত । ( ii ) এখানে শুষ্ক বায়ু উপর থেকে নীচে ( বায়ুস্রোত ) নেমে আসে । ( iii ) ফলে আকাশে মেঘের সঞ্চার হয় না এবং বৃষ্টিও হয় না । এখানে বাৎসরিক গড় বৃষ্টি ২৫ সেমিরও কম । 

  1. ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু কোথায় কোথ পরিলক্ষিত হয় ?

Answer : উভয় গোলার্ধের ৩০ ° -৪০ ° অক্ষরেখার মধ্যে নাতিশীতোয় মণ্ডলে ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু দেখা যায় । প্রধান অঞ্চলগুলি হল— ( i ) ভূমধ্যসাগরের তীরবর্তী ইউরোপ , আফ্রিকা ও এশিয়ার দেশসমূহ ; ( ii ) উত্তর আমেরিকার লস এঞ্জেলস ; ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার চিলির মধ্যভাগ ; ( iv ) দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন ; ( v ) অস্ট্রেলিয়ার পার্থ ও অ্যাডিলেড । 

  1. ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে গ্রীষ্মকাল শুষ্ক এবং শীতকাল আৰ্দ্ৰ কেন ?

 অথবা , ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে শীতকালে বৃষ্টি হয় কেন ?

Answer : ( i ) গ্রীষ্মকালে ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শান্ত বলয় অবস্থান করে বলে বায়ু উপর থেকে নীচে নেমে আসে । ফলে আকাশে মেঘের সঞ্চার হয় না । এবং বৃষ্টিপাত ঘটে না । ( ii ) পক্ষান্তরে শীতকালে এই অঞ্চল থেকে উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয় সরে যায় । অর্থাৎ অঞ্চলটি চাপ বলয় মুক্ত হয় বলে পশ্চিমা বায়ু প্রবাহিত হতে পারে । পশ্চিমা বায়ু সমুদ্র থেকে জলীয় বাষ্প সংগ্রহ করে এই অঞ্চলে প্রবেশ করে বৃষ্টিপাত ঘটায় । তাই শীতকালে এখানে বৃষ্টিপাত হয় এবং গ্রীষ্মকাল শুষ্ক থাকে ।

  1. স্টেপ জলবায়ু কোথায় কোথায় দেখা যায় ?

Answer : পৃথিবীর নাতিশীতোয় তৃণভূমি অঞ্চলগুলি স্টেপ জলবায়ুর অন্তর্গত । অঞ্চলগুলি হল – ( i ) ইউরেশিয়ার স্টেপ অঞ্চল , ( ii ) উত্তর আমেরিকার প্রেইরী অঞ্চল , ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার পম্পাস অঞ্চল , ( iv ) দক্ষিণ আফ্রিকার ভেল্ড এবং ( v ) অস্ট্রেলিয়ার ডাউনস্ অঞ্চল ।

  1. স্টেপ জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Answer : ( i ) মহাদেশের অভ্যন্তরে অবস্থানের কারণে জলবায়ু চরম প্রকৃতির । ( ii ) শীতকালে উষ্ণতা খুব কম হয় । কখনো – কখনো হিমাঙ্কের অনেকটা নীচে নামে । ( iii ) গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা থাকে ২০০-২৫ ° C এবং বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর ২৫ ° -৩০ ° C । ( iv ) গড় বৃষ্টি ২৫-৫০ সেমি এবং শীতকালে বরফ পড়ে ।

  1. তুন্দ্রা জলবায়ুর অবস্থান উল্লেখ করো ।

Answer : উত্তর গোলার্ধের ৭০ ° -৮০ ° অক্ষরেখার মধ্যে তুন্দ্রা জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় । প্রধান অঞ্চলগুলি হল – ( i ) এশিয়ার সাইবেরিয়ার উত্তর অংশ ; ( ii ) ইউরোপের নরওয়ে , সুইডেন ও অংশ ; ( iii ) উত্তর আমেরিকার কানাডার উত্তর ফিনল্যান্ডের অংশ , গ্রিনল্যান্ডের দক্ষিণ উপকূল এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কা ।

  1. তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Answer : তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : ( ১ ) মেরুপ্রায় অঞ্চলে অবস্থানের কারণে শীতকাল দীর্ঘস্থায়ী ( ৭–৮ মাস ) এবং গ্রীষ্মকাল স্বল্পস্থায়ী ( ৪-৫ মাস ) । ( ২ ) শীতকালের গড় উষ্ণতা হয় – ২০ ° সেলসিয়াস এবং গ্রীষ্মকালে ০ ° থেকে ১০ ° C । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর খুব বেশি , প্রায় ৩০ ° -80 ° C । ( ৪ ) শীতকালে প্রবল তুষারপাত হয় এবং তুষারঝড় ( ব্লিজার্ড ) ঘটে ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর অবস্থান উল্লেখ করো ।

Answer : নিরক্ষরেখার উভয় পাশে গড়ে ৫ ° -১০ ° অক্ষরেখার মধ্যে নিরক্ষীয় জলবায়ু বিস্তৃত । প্রধান অঞ্চলগুলি হল— ( ক ) দক্ষিণ C আমেরিকায় ব্রাজিলের মধ্যভাগ , পেরু , কলম্বিয়া , ইকুয়েডর , বলিভিয়া , ( খ ) আফ্রিকার কঙ্গো , গ্যাবন , ক্যামেরুন , অ্যাঙ্গোলা , ( গ ) এশিয়ার মালয়েশিয়া , ইন্দোনেশিয়া , সিঙ্গাপুর ইত্যাদি । 

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ুর প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো । 

Answer : ( i ) নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলে গড় উষ্ণতা সারাবছর খুব বেশি গড়ে ২৭ ° C ( ii ) বার্ষিক গড় উষ্ণতার প্রসর খুব কম ( ২ ° -৩ ° C ) । বার্ষিক গড় উষ্ণতার পার্থক্যের থেকে দৈনিক উষ্ণতার পার্থক্য ( ৪ ° -১০ ° C ) বেশি । ( iii ) সারাবছর ধরেই বৃষ্টি হয় । বার্ষিক গড় বৃষ্টি ২০০-২৫০ সেমি । বৃষ্টির অধিকাংশই ঘটে অপরাহ্ণে । ( iv ) জলবায়ু ঋতু পরিবর্তনহীন । সারাবছর একটি ঋতু বিরাজ করে ।

  1. নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলের জলবায়ু উদ্বু – আর্দ্র ও প্রকৃতির কেন ?

Answer : ( i ) নিরক্ষীয় অঞ্চলে সারাবছর সূর্যকিরণ লম্বভাবে পড়ে এবং দিন ও রাত্রির দৈর্ঘ্য সমান বলে গড় উষ্ণতা বেশি । ( ii ) নিরক্ষীয় অঞ্চল বরাবর সমুদ্রের বিস্তার বেশি বলে অধিক ত উষ্ণতায় জল বাষ্পীভূত হয় । ফলে বাতাসে আর্দ্রতা খুব বেশি । তাই সারাবছর ধরেই এখানে জলবায়ু উষ্ণ – আর্দ্র প্রকৃতির ।

  1. পৃথিবীর কোথায় কোথায় মৌসুমি জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় ?

Answer : উভয় গোলার্ধের ১০ ° -২৫ ° অক্ষরেখার মধ্যে ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ু পরিলক্ষিত হয় । অঞ্চলগুলি হল – ( i ) এশিয়ার ভারতীয় উপমহাদেশের ভারত , বাংলাদেশ , মায়ানমার , ভিয়েতনাম , চিনের দক্ষিণ অংশ ; ( ii ) আফ্রিকার পূর্বে মোজাম্বিক , কেনিয়া , সোমালি এবং পশ্চিমে গিনি , সিয়েরালিওন আভরি কোর্স্ট ; ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার ভেনেজুয়েলা , গায়ানা , সুরিনাম ; ( iv ) অস্ট্রেলিয়ার কার্পেন্টারিয়া উপসাগর অঞ্চল ।

  1. পৃথিবীর উষ্ণ মরু জলবায়ু কোথায় কোথায় দেখা যায় ?

Answer : ক্রান্তীয় মরুভূমি হল উষ্ণ মরু জলবায়ু অঞ্চল । ( i ) আফ্রিকার উত্তরে সাহারা ও দক্ষিণে কালাহারি মরুভূমি ; ( ii ) উত্তর আমেরিকার সোনেরান ; ( iii ) দক্ষিণ আমেরিকার আটাকামা ; ( iv ) অস্ট্রেলিয়ার অস্ট্রেলিয়া মরুভূমি এবং ( v ) মধ্যপ্রাচ্যের সৌদি আরব , ইয়ামেন , ওমান , কাতার ইত্যাদি । 

  1. উষ্ণ মরু জলবায়ুর প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Answer : ( i ) জলবায়ু উষ্ণ ও শুষ্ক এবং চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির । ( ii ) গ্রীষ্মকালের গড় উষ্ণতা ৩০ ° -৩৫ ° C এবং শীতকালে ২০ ° C । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসার বেশ বেশি , প্রায় ১৫ ° C । উষ্ণতায় চরমতা খুব বেশি । ( iii ) বার্ষিক গড় বৃষ্টি কম , Z২৫ সেমি । অধিকাংশ মাস বৃষ্টিহীন । 

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর | পৃথিবীর মুখ্য জলবায়ু অঞ্চল এবং বৃষ্টিপাত ও উষ্ণতা লেখচিত্র (বায়ুমণ্ডল – দ্বিতীয় অধ্যায়) – মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion : 

1. পৃথিবীর উষ্ণ মরু জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো ।

Answer : উষু মরু জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) চরমভাবাপন্ন জলবায়ু মরুভূমির জলবায়ু চরমভাবাপন্ন প্রকৃতির । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর এখানে খুব বেশি । দিনে যেমন উষ্ণতা বেশ বাড়ে তেমনি রাত্রেও উষ্ণতা কমে । 

( ২ ) উগ্ন ও শুষ্ক জলবায়ু : সারাবছর আদ্রহীন উষ্ণ শুষ্ক জলবায়ু বিরাজ করে । 

( ৩ ) শান্তবলয়ের অবস্থান । এই অঞ্চল উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শান্তবলয়ের অন্তর্গত । বায়ু এখানে ঊর্ধ্বস্থান থেকে নীচের দিকে । ধীরে ধীরে ( বায়ুস্রোত ) নেমে আসে । 

( ৪ ) উষ্ণতা : গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ৩০০-৩৫ ° C এবং শীতকালে ২০০-২৫ ° C । গ্রীষ্মের দুপুরে উষ্ণতা ৫০ ° C পর্যন্ত ওঠে । বার্ষিক গড় উষ্ণতার প্রসর ১৫ ° -২০ ° C এবং দৈনিক উষ্ণতার প্রসর ২০ ° সেলসিয়াস । 

( ৫ ) বৃষ্টিপাত : উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয়ে অবস্থান করায় বায়ু সর্বদা নিম্নমুখী বলে আকাশে মেঘের সঞ্চার হয় না । তাই বৃষ্টিও খুব কম । বার্ষিক গড় বৃষ্টি ২৫ সেমির কম । 

2. তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Answer : তুন্দ্রা জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) দীর্ঘস্থায়ী শীতকাল ; উপমেরু অঞ্চল বরাবর এই জলবায়ু অঞ্চল অবস্থানের কারণে এখানে প্রায় ৯ মাস শীতকাল বিরাজ করে , যখন উষ্ণতা হিমাঙ্কের অনেকটা নীচে থাকে । 

( ২ ) স্বল্পস্থায়ী গ্রীষ্মকাল এখানে গ্রীষ্মকাল মাত্র ৩ মাস । এই সময় উষ্ণতা হিমাঙ্কের কিছুটা ওপরে থাকে । 

( ৩ ) উষ্ণতা : সারাবছর এখানে উষ্ণতা কম । শীতকালে গড় উষ্ণতা থাকে – ২০ ° C এবং গ্রীষ্মকালে ০ ° থেকে ১০ ° C । শীতকালে কখনো কখনো উষ্ণতা হিমাঙ্কের নীচে ৫০ ° C পর্যন্ত নামে । 

( ৪ ) বৃষ্টিপাত : গ্রীষ্মকালে ঘূর্ণবাতের প্রভাবে ২৫-৫০ সেমি বৃষ্টি হয় । 

( ৫ ) তুষারপাত ও তুষারঝড় : শীতকালে উত্তর দিক থেকে কনকনে ঠান্ডা ঝোড়ো বাতাস বয় । প্রায়শই এখানে শীতকালে বরফ পড়ে এবং প্রবল তুষারঝড় ( ব্লিজার্ড ) দেখা দেয় ।

3. নিরক্ষীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো ।

Answer : নিরক্ষীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) ঋতু পরিবর্তনহীন জলবায়ু : এই জলবায়ু অঞ্চলে সারাবছর একটি ঋতু ( উষ্ণ – আর্দ্র গ্রীষ্ম ঋতু ) পরিলক্ষিত হয় । ঋতু পরিবর্তন এখানে লক্ষ করা যায় না । 

( ২ ) উষ্ণতা গড় উষ্ণতা এখানে বেশি , গড়ে ২৭ ° C সারাবছর উষ্ণতা প্রায় একই থাকে । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর খুব কম ( ২ ° -৩ ° C ) এবং বার্ষিক উষ্ণতার প্রসরের থেকে দৈনিক উষ্ণতার প্রসর এখানে বেশি । 

( ৩ ) বৃষ্টি : প্রায় প্রতিদিন অপরাহ্লে এখানে পরিচলন পদ্ধতিতে বৃষ্টি হয় । বার্ষিক গড় বৃষ্টি ২০০-২৫০ সেমি । প্রতি মাসেই এখানে বৃষ্টি হয় । তবে মার্চ ও সেপ্টেম্বরে বৃষ্টির পরিমাণ বেশি । 

( ৪ ) নিরক্ষীয় শান্তবলয় : এই অঞ্চল নিরক্ষীয় শান্তবলয়ের অন্তর্গত । ভূপৃষ্ঠের সমান্তরালে এখানে বায়ুপ্রবাহ ঘটে না । উষ্ণ আর্দ্র বায়ু পরিচলন পদ্ধতিতে ঊর্ধ্বমুখী হয় । 

( ৫ ) ভ্যাপসা গরম ও গুমোট আবহাওয়া : অধিক উষ্ণতা ও বাতাসে অধিক আর্দ্রতার প্রভাবে আবহাওয়া সর্বদা ভ্যাপসা গরম ও গুমোট থাকে । বৃষ্টির পর রাত্রে উষ্ণতা কিছুটা কমে । তাই এখানে রাত্রিকে শীতকাল ’ বলা হয় । 

4. ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো । 

ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) মৌসুমি বায়ুর অত্যধিক প্রভাব : এই জলবায়ু অঞ্চলের ঋতু পরিবর্তন , বৃষ্টিপাত , উষ্ণতা , আর্দ্রতা , বায়ুপ্রবাহ প্রভৃতি বিষয়গুলি মৌসুমি বায়ু দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় । 

( ২ ) বিপরীতমুখী বায়ুপ্রবাহ : মৌসুমি বায়ুর আগমনে এখানে বায়ু সমুদ্র থেকে স্থলভাগের দিকে এবং প্রত্যাগমনে স্থলভাগ থেকে সমুদ্রের দিকে বয়ে যায় । ঋতুপরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বায়ুপ্রবাহের ১৮০ ° পরিবর্তন ঘটে । 

( ৩ ) বৃষ্টিপাত : মোট বৃষ্টির প্রায় ৯০ ভাগ ঘটে মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে । মৌসুমি বায়ু যেহেতু খামখেয়ালি প্রকৃতির তাই বৃষ্টির বাৎসরিক পরিমাণের তারতম্য ঘটে । বৃষ্টির আঞ্চলিক বণ্টনের তারতম্যও খুব বেশি । এখানে অঞ্চলভিত্তিক গড় বৃষ্টি ৫০-২৫০ সেমি । 

( ৪ ) উষ্ণতা : গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ২৭ ° –৩২ ° সেলসিয়াস এবং শীতকালে ১৫ ° -২০ ° সেলসিয়াস । মৌসুমি বায়ুর আগমনে । বৃষ্টির প্রভাবে উষ্ণতা একলাফে অনেকটা কমে । 

( ৫ ) ঋতু পরিবর্তনহীন মৌসুমি বায়ুর আগমন ও প্রত্যাগমনের ওপর ভিত্তি করে এখানে চারটি সুস্পষ্ট ঋতু ( গ্রীষ্মকাল , বর্ষাকাল । শরৎকাল , শীতকাল ) পরিলক্ষিত হয় । 

5. ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলি উল্লেখ করো ।

Answer : ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য : 

( ১ ) নাতিশীতোয় ও মনোরম জলবায়ু সমুদ্র উপকূলে অবস্থানের কারণে সমুদ্র বায়ু ও স্থলবায়ুর প্রভাবে জলবায়ু থাকে সারাবছর মনোরম প্রকৃতির । তাই এই জলবায়ুকে বলা হয় । ‘ বিনোদনের জলবায়ু ’ বা ‘ Resort Climate of the World | 

( ২ ) শীতকালে নিম্নচাপ এবং গ্রীষ্মকালে উচ্চচাপ : উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয় গ্রীষ্মকালে এখানে অবস্থান করায় বায়ুচাপ বেশি । আবার শীতকালে উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ বলয় এখান থেকে সরে যায় । বলে বায়ুচাপ কম হয় । 

( ৩ ) শুষ্ক গ্রীষ্মকাল এবং আর্দ্র শীতকাল : উপক্রান্তীয় উচ্চচাপ শান্তবলয় অবস্থান করায় গ্রীষ্মকালে এখানে বৃষ্টি হয় না । শীতকালে এই অঞ্চল থেকে উচ্চচাপ বলয় সরে যাওয়ায় চাপবলয় মুক্ত হয় । বলে পশ্চিমা বায়ু প্রবেশ করে বৃষ্টিপাত ঘটায় । 

( ৪ ) উষ্ণতা : গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা ২০ ° -২৫ ° C এবং শীতকালে ৫ ° -১০ ° C । বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর ১০ ° -১৫ ° C । ( ৫ ) বৃষ্টিপাত : শীতকালে পশ্চিমা বায়ুর প্রভাবে গড়ে ৫০-৭৫ সেমি বৃষ্টি হয় । ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলকে বলা হয় ‘ শীতকালীন বৃষ্টিপাতের দেশ ‘ ।

 ©kamaleshforeducation.in(2023)

 

 

 

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *